kalerkantho


নোংরা পানি জারে ভরে বিক্রি, দুটি কারখানা সিলগালা

১২ জনকে অর্থ ও কারাদণ্ড ফুডগ্রেডবিহীন ৪২০০ জার জব্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



জারে ভরে নোংরা পানি বাজারজাত করার দায়ে রাজধানীর তোপখানা রোড ও পল্টন এলাকার দুটি পানির কারখানা সিলগালা করে দিয়েছে র‌্যাব। এ ছাড়া ৯ জনকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এ সময় ফুডগ্রেডবিহীন চার হাজার ২০০ জার জব্দ করা হয়।

গতকাল রবিবার সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত তোপখানা রোড ও পল্টন এলাকার কয়েকটি পানির কারখানায় অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানের সময় দেখা গেছে, জারে সরাসরি ওয়াসার পানি ভরা হচ্ছে। এ সময় কারখানা মালিকদের উপস্থিতিতে পানি বিশুদ্ধকরণ যন্ত্রের প্রাইমারি ও সেকেন্ডারি বাকেট খুলে দেখা যায় এর ভেতরে কোনো বিশুদ্ধকরণ ফিল্টার নেই। এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদে মালিকরা কোনো সদুত্তর না দিয়ে অপরাধের কথা স্বীকার করে ক্ষমা চান।

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, তোপখানা রোডের দিঘী পিওর ড্রিংকিং ওয়াটার কারখানায় অভিযান চালিয়ে নোংরা পরিবেশ দেখে ভ্রাম্যমাণ আদালত এক লাখ টাকা জরিমানা করেন। একই রোডের উইনার ফ্রেশ ড্রিংকিং ওয়াটার নামের কারখানা মালিক মোকাম্মেল হোসেনকে দুই লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

এ ছাড়া তোপখানা রোডের লিমুকা ড্রিংকিং ওয়াটার নামের কারখানার শেখ মো. সেলিম (৪৬), সৈয়দ তুহিন আহমেদ (৩১), নাজমুল হোসেন (২২), মো. দেলোয়ার হোসেন (২২), মো. রেজাউল করিমকে (২৩) তিন মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। 

একুয়াওয়াটার নামে কারখানার মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। মাসাফি ড্রিংকিং ওয়াটার নামের কারখানার ইব্রাহীম মোল্লা (৩৩), মো. শামীম (২২), মো. মাহবুব (২৪), মো. তসরুল ইসলামকে (২০) এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম। এ সময় কারখানাটি থেকে ফুডগ্রেডবিহীন ২০ লিটারের চার হাজার ২০০টি জার জব্দ করা হয়।

অভিযান পরিচালনার সময় বিএসটিআই ও র‌্যাব-৩-এর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।



মন্তব্য