kalerkantho


ঝিনাইগাতী ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদকের ওপর হামলা

শেরপুর প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার খান শাওনের (২৩) ওপর লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালিয়েছে সংগঠনের একাংশের নেতাকর্মীরা। তাঁকে গুরুতর আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার তিনানী বাজারে এ হামলা হয়। এর প্রতিবাদে শাওনের অনুসারীরা ওই রাতেই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিরুজ্জামান লেবুর বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর করে।

চিকিৎসাধীন ছাত্রলীগ নেতা শাওন জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সংগঠনের কাজে তিনি তিনানী বাজারে যান। ওই সময় ছাত্রলীগকর্মী রণবীর আহম্মেদ রনির নেতৃত্বে ৮-১০ জনের একটি দল লোহার রড ও লাঠিসোঁটা নিয়ে তাঁর ওপর আকস্মিক হামলা চালায়। এতে তিনি গুরুতর আহত হলে তাঁকে ঝিনাইগাতী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

স্থানীয় সূত্রগুলো জানায়, হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। রাতেই শাওন সমর্থক নেতাকর্মীরা হামলাকারী রনিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিরুজ্জামান লেবুর সমর্থক উল্লেখ করে তাঁকে ঝিনাইগাতী বাজারে খুঁজতে থাকে। একপর্যায়ে তাঁকে বাজারে না পেয়ে তাঁর বসতবাড়িতে হামলা চালায়। ওই সময় ইটপাটকেলের আঘাতে বাসার গেট ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম এ ওয়ারেজ নাইম ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে ছাত্রলীগ নেতাদের শান্ত করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এ ব্যাপারে আমিরুজ্জামান লেবু বলেন, ‘অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের ওপর হামলা হতে পারে। সে বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। অথচ আমার বাসায় হামলা করা হয়েছে। বিষয়টি আমি দলীয় নেতাদের ও থানার ওসিকে জানিয়েছি।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ এস এম এ ওয়ারেজ নাইম বলেন, ‘ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের ওপর হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও হামলাকারীর শাস্তির দাবি জানাই। তবে ওই ঘটনার জেরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বাড়িতে হামলার ঘটনাটিও নিন্দনীয়।’

ঝিনাইগাতী থানার ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাস সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঘটনা দুটি সম্পর্কে অবহিত হয়েছি। কিন্তু কোনো পক্ষ থেকেই লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’


মন্তব্য