kalerkantho


মেধাবী তানিয়া কি অকালে ঝরে যাবে?

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



মেধাবী তানিয়া কি অকালে ঝরে যাবে?

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ভাংনাহাতী রহমানিয়া কামিল স্নাতকোত্তর মাদরাসার কোরআন মাজিদ বিষয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের ছাত্রী তানিয়া আক্তার (১৯)। তাঁর উচ্চতা ৫ ফুট ১ ইঞ্চি। তাঁর ওজন মাত্র ২৯ কেজি। অথচ এক বছর আগে তাঁর ওজন ছিল ৫৫ কেজি।

শ্রীপুরের বরমী বাজারের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের ইনসাফ মেডিক্যাল হলের দোকানি আলী হোসেন জানান, তানিয়া তাঁর ভাইয়ের মেয়ে। তাঁর ভাই মো. কামাল উদ্দিন দিনমজুরি করে সংসার চালান। তাঁদের বাড়ি পেলাইদ গ্রামে। এক বছর আগেও মেয়েটি সুস্থ ছিলেন। গত ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে তাঁকে ঢাকার জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নিয়ে গিয়েছিলেন। চিকিৎসকরা জানান, তাঁর চিকিৎসার জন্য আড়াই লাখ টাকা খরচ হবে।

কালের কণ্ঠে পাঠানো একটি চিঠিতে তানিয়া লিখেছেন, ‘আমার বাবা একটি এনজিও থেকে ফেব্রুয়ারিতে ৫০ হাজার টাকা ঋণ করেছেন। এর বাইরে কোনো টাকা নেই। বাকি টাকা সংগ্রহ করতে না পারলে চড়া সুদে নেওয়া এ ঋণ বিফলে যাবে।’

আলী হোসেন বলেন, ‘চিকিৎসকরা কোনো ওষুধ লিখে দেননি যে তানিয়াকে খাওয়াব। তাঁরা দ্রুত অপারেশন করতে বলেছেন। কিন্তু আমরা এত টাকা কোথায় পাব? এমন একটা মেধাবী মেয়ে চোখের সামনে ধুঁকছে, অথচ কিছুই করতে পারছি না।’ তানিয়ার সহযোগিতায় এগিয়ে এসে একটি পরিবারকে রক্ষার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : মোবাইল ব্যাংকিং (রকেট) হিসাব নম্বর ০১৯৬০৫৬৭৯২১৩।



মন্তব্য