kalerkantho


রাজবাড়ীতে ধর্ষণের পর গৃহবধূকে হত্যা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



রাজবাড়ীতে আঞ্জু বেগম (৪৬) নামের এক গৃহবধূকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল দুপুরে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়ন পরিষদসংলগ্ন চেয়ারম্যানের বাগানে তাঁর লাশ পাওয়া যায়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মানসিক রোগী আঞ্জু বেগমের স্বামীর নাম আকবর আলী। বাড়ি আলাদীপুর ব্রিজপাড়া গ্রামে। মানসিক বিকারবশে তিনি মাঝেমধ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে ঘোরাঘুরি করতেন। রবিবার রাত ৯টা পর্যন্ত তাঁকে আলাদীপুর বাজারে অবস্থান করতে দেখেছে অনেকে। এরপর আর খোঁজ পাওয়া যায়নি। রাতে তিনি বাড়ি ফেরেননি।

গতকাল দুপুরে আলীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত হাসানের মেহগনি বাগানে আঞ্জু বেগমের লাশ পড়ে থাকতে দেখে অনেকে। পরে পুলিশ পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে। পরনের কাপড়সহ আলামত বিশ্লেষণে পুলিশের ধারণা গণধর্ষণের পর তাঁকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। দুর্বৃত্তদের চিনে ফেলার কারণে হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করছে অনেকে। লাশ উদ্ধারের স্থান মেহগনি বাগানটিতে স্থানীয় একটি গ্রুপ তাস খেলাসহ নিয়মিত আড্ডা দিত। তাদের কারো এ ঘটনায় সম্পৃক্ততা আছে কি না, তা পুলিশ যাচাই করছে। বাজারটিতে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছে পুলিশ।

আলীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত হাসান বলেন, আঞ্জু বেগমকে ধর্ষণের পর হত্যা করার সম্ভাবনা বেশি। মেহগনি বাগানে কারা লাশ ফেলে গেছে—তা জানার চেষ্টা চলছে। রাজবাড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কামাল হোসেন ভুইয়া বলেন, দুপুরে লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ধর্ষণের পর হত্যা কি না, তা প্রতিবেদন পেলে বোঝা যাবে থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি রাতে সদর উপজেলার বসন্তপুরে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী চিকিৎসক। সে ঘটনার রেশ কাটেনি এখনো। পুলিশ অপরাধীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালাচ্ছে।



মন্তব্য