kalerkantho


সেমিনারে বক্তারা

নারী খেলোয়াড়দের উন্নয়নে বিনিয়োগকারী মেলে না

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



নারী খেলোয়াড়দের উন্নয়নে বিনিয়োগকারী মেলে না

একশনএইড ও ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি গতকাল নারী ক্রীড়াবিদদের বিশেষ সম্মাননা প্রদান করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

দেশের নারী খেলোয়াড়রা সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে বৈষম্যের শিকার হয়ে আসছে। তাদের উন্নয়নে কোনো বিনিয়োগকারী পাওয়া যায় না। ফলে অন্য নারীরা ক্রীড়া ক্ষেত্রে অংশ নিতে উৎসাহিত হয় না। গতকাল মঙ্গলবার একশনএইড বাংলাদেশ আয়োজিত ‘ক্রীড়াঙ্গনে নারী : সংগ্রামে, মুক্তিতে’ শীর্ষক আলোচনা ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। রাজধানীর ইনডিপেনডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে জাতীয় শ্যুটার শারমীন আক্তার রত্না বলেন, ‘আমাদের জন্য কোনো বেতন নেই। খেলার কোনো মূল্যায়ন হয় না। পুরুষ খেলোয়াড়রা কোনো খেলায় জিতলেই তাদের গাড়ি-বাড়ি দেওয়া হয়। কিন্তু আমরা এত অর্জন করলেও তার মূল্যায়ন হয় না। পুরুষরা কিছু করলেই তা বড় করে সংবাদ হয়।’

নারীরা বাস্কেটবল খেলতে পারে—এটাই অনেকে বিশ্বাস করতে চায় না উল্লেখ করে বাংলাদেশ বাস্কেটবল দলের দলনেতা আসিন মৃধা বলেন, ‘আমরা খেলার জন্য নিরাপদ জায়গা পাই না। জাতীয় পর্যায়ে খেলোয়াড়দের আর্থিক নিরাপত্তা নেই।’

নারী নেত্রী খুশি কবির বলেন, ‘বাস্তবতা হলো একজন নারী বা কিশোরী খেলোয়াড়কে নানা ধরনের বৈষম্যের সম্মুখীন হতে হয়। ক্রীড়া ক্ষেত্রে নারী-পুরুষের ভেদাভেদ খুবই দুঃখজনক। এটি নারীর ক্ষমতায়নের অন্তরায়।’

অনুষ্ঠানে কালের কণ্ঠ’র উপসম্পাদক মোস্তফা মামুন বলেন, ‘অনেক প্রতিকূলতা পার হয়ে একজন নারীকে মাঠে নামতে হয়। এ দেশে মাঠে নামতে পারাই একজন নারীর বড় বিজয়।’

একশনএইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ্ কবিরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় বলেন, ‘সরকার নারী খেলোয়াড়দের উন্নয়নে কাজ করে চলেছে। তৃণমূলের অনেক নারীকে এরই মধ্যে জাতীয় পর্যায়ে উঠিয়ে আনা হয়েছে। এসব নারী আন্তর্জাতিক অঙ্গনের খেলায় ভালো করছে।’

 


মন্তব্য