kalerkantho


সমাবেশে সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি

সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে সরাসরি নির্বাচনের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



আন্তর্জাতিক নারী দিবসের কর্মসূচির অংশ হিসেবে ৭২টি নারী, মানবাধিকার ও উন্নয়ন সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত ‘সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি’ সমাবেশ করেছে। জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে সরাসরি নির্বাচন, আসনসংখ্যা এক-তৃতীয়াংশ বৃদ্ধি এবং নির্বাচনী এলাকা পুনর্নির্ধারণ দাবি ছিল সমাবেশের মূল দাবি। গতকাল সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি আয়শা খানমের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক শিপা হাফিজা, স্টেপস টুওয়ার্ডস ডেভেলপমেন্টের নির্বাহী পরিচালক রঞ্জন কর্মকার, উইমেন ফর উইমেনের সভাপতি নিলুফার বানু, বাউশির নির্বাহী পরিচালক মাহবুবা বেগম মিরু, দ্য হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশের প্রতিনিধি দিলিপ কুমার সরকার, অ্যাডাবের পরিচালক এ কে এম জসীমউদ্দিন, জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের সভাতি নাজমা বেগম পপি, ব্র্যাকের প্রতিনিধি কাজী শাহান, দলিত নারী ফোরামের সভাপতি মনি নারী দাস, গণসাক্ষরতা অভিযানের প্রতিনিধি রেহানা বেগম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি ও রাজনীতিতে নারীর অবস্থান এবং নারীর পরিসর বেশ ছোট। নারীরা সর্বোচ্চ সহিংসতার শিকার হয়েও তারা বিভিন্ন ক্ষেত্রে ইতিবাচক ভূমিকা রেখে চলছে। জাতীয় সংসদে সরাসরি নির্বাচন দিতে হবে বলেও তাঁরা উল্লেখ করেন। বক্তারা প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রাখার প্রস্তাব রাখেন। জাতীয় সংসদে যেখানে সিদ্ধান্ত গ্রহণ হয়, আইন তৈরি হয় সেখানে নারীর যথাযথ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে বলেও বক্তারা উল্লেখ করেন। পার্লামেন্ট, প্রশাসন এবং স্থানীয় সরকারে সব ধরনের অধিকার রেখে নারীর অংশীদারির দাবি রাখেন বক্তারা। সরকারের নারীর ক্ষমতায়নের গৃহীত পদক্ষেপ এবং এসডিজি সনদের সঙ্গে এটি সাংঘর্ষিক। বক্তারা আরো বলেন, যে শিক্ষানীতি প্রণয়ন করা হলো তা বাস্তবায়িত হয়নি, প্রগতিশীল বিষয়গুলো বাদ দেওয়া হয়েছে, বিয়ের বয়সে বিশেষ বিধান রাখা হয়েছে, মুক্তবুদ্ধির চর্চা যাঁরা করছেন তাঁদের ওপর হামলা হচ্ছে। বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠছে। এই অবস্থা থেকে বের হতে হলে সবাইকে এসবের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

 

 


মন্তব্য