kalerkantho


উদীচী ট্র্যাজেডির ১৯ বছর পূর্তি আজ

মামলার পুনঃ তদন্ত ও দোষী চিহ্নিত করে শাস্তির দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও যশোর   

৬ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



যশোর টাউন হল মাঠে উদীচীর সম্মেলনে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে হত্যাকাণ্ডের ১৯ বছর আজ। ১৯৯৯ সালের ৬ মার্চ নিহত হয় ১০ শিল্পীসহ সাধারণ মানুষ। আহত হয় দেড় শতাধিক। উদীচী ট্র্যাজেডি দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। মামলার পুনঃ তদন্ত ও দোষীদের চিহ্নিত করে শাস্তির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী।

দিবসটি উপলক্ষে যশোরে আজ বিকেলে ১০ শহীদের স্মরণে টাউন হল মাঠে আলোচনাসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোক প্রজ্বালন ও পুষ্পস্তবক অপর্ণের আয়োজন করেছে উদীচী যশোর জেলা সংসদ।

গতকাল বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অধ্যাপক সফিউদ্দিন আহমদ এবং সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনোয়ার তপন এক যুক্ত বিবৃতিতে দাবি জানান—যশোর হত্যাকাণ্ডের পুনঃ তদন্ত এবং প্রকৃত দোষীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে দ্রুত শাস্তি দিতে হবে।

বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, ১৯৯৯ সালের যশোর হত্যাকাণ্ডসহ বড় বড় সাম্প্রদায়িক হিংস্র বোমা হামলা; অসাম্প্রদায়িক, মুক্তমনা ব্লগার-লেখক-বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডের যথাযথ বিচার সম্পন্ন না হওয়া এবং বিভিন্নভাবে ধর্মীয় মৌলবাদী গোষ্ঠীর প্রতি সরকারের নতজানু নীতির কারণে এখনো প্রগতিবাদী লেখক-বুদ্ধিজীবী অধ্যাপক জাফর ইকবাল আক্রান্ত হন। বিবৃতিতে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর মারাত্মক আক্রমণের ঘটনার প্রতি ধিক্কার জানানো হয়।


মন্তব্য