kalerkantho


বিবিসি বাংলাকে ফখরুল

সরকারের নিপীড়নেই বিএনপির গঠনতন্ত্রে সংশোধন এসেছে

বিবিসি বাংলা   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপির গঠনতন্ত্র সংশোধন নিয়ে বিতর্কের পরিপ্রেক্ষিতে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই পরিবর্তন এখন আনা হয়নি। এই পরিবর্তন আনা হয়েছে ২০১৬ সালে। আর বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর যে অত্যাচার ও নিপীড়ন চলছে তার পরিপ্রেক্ষিতেই তাদের এই পরিবর্তন আনতে হয়েছে। গতকাল রবিবার বিবিসি বাংলাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ দাবি করেছেন ফখরুল।

বিএনপির আগের গঠনতন্ত্রের ৭ নম্বর ধারায় বলা ছিল, ‘উন্মাদ, দেউলিয়া, দণ্ডপ্রাপ্ত বা দুর্নীতিগ্রস্ত বলে সমাজে পরিচিতি আছে—এমন কেউ কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে আসতে পারবে না।’ তবে এই ধারা বাতিল করে সম্প্রতি সংশোধিত গঠনতন্ত্র নির্বাচনের কমিশনে জমা দিয়েছে দলটি। দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ার কয়েক দিন আগে তারা এটি জমা দিয়েছে।

এই পরিবর্তনের বিষয়টি প্রকাশ পেলে বিএনপির তীব্র সমালোচনা করছে ক্ষমতাসীনরা। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কাউন্সিল না করে হঠাৎ দলীয় সংবিধানের এমন একটি ধারা বাতিল করে বিএনপি প্রমাণ করেছে তারা দুর্নীতিবাজদের একটি দল।

বিএনপির গঠনতন্ত্রের এই পরিবর্তন নিয়ে দলটির ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেছেন, ‘বাংলাদেশের রাজনৈতিক বাস্তবতার কথা বিবেচনা করেই তাদের এটা করতে হয়েছে। তাঁর মতে, এটা না করলে বিএনপি করার লোক খুঁজে পাওয়া যাবে না। কারণ এই সরকার সবাইকে এভাবে দণ্ডিত করার জন্যে ব্যবস্থা নিয়েছে। আমাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে হাজার হাজার মামলা।’

তিনি বলেন, ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত জাতীয় সম্মেলনে গঠনতন্ত্র সংশোধনের জন্যে তরিকুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল। তখনই এই পরিবর্তন আনা হয়েছে। বর্তমান সরকার তাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যেভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে মামলা করছে তাতে তাদের এই কৌশলের আশ্রয় নিতে হয়েছে।

ফখরুল বলেন, ‘একটি ফ্যাসিস্ট সরকার যখন ক্ষমতায় থাকে এবং তারা যখন অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলোকে স্বাভাবিক নিয়মেও কাজ করতে দেয় না তখন আমাদেরও কিছু একটা ব্যবস্থা নিতে হয়।’ তিনি বলেন, বিএনপির সব সিনিয়র নেতা এমনকি গ্রামপর্যায়ের নেতাদের নামেও মামলা করা হয়েছে। সে কারণে দলের ভেতর থেকেই দাবি উঠেছে গঠনতন্ত্রে এই পরিবর্তন আনার। ২০১৬ সালে বিএনপির গঠনতন্ত্রে এই পরিবর্তন আনা হলেও নির্বাচন কমিশনের কাছে এই গঠনতন্ত্র জমা দেওয়া হয়েছে সম্প্রতি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের কাছে পরিবর্তিত গঠনতন্ত্র জমা দিতে আমাদের কিছুটা বিলম্ব হয়েছে মামলা মোকদ্দমাসহ বিভিন্ন সমস্যার কারণে।’

বাস্তবতার পরিবর্তন ঘটলে আবারও বিএনপির গঠনতন্ত্রে এই ৭ নম্বর ধারাটি ফিরিয়ে আনা হবে কি না এই প্রশ্নের উত্তরে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘নিঃসন্দেহে এটাই স্বাভাবিক হবে।’

ক্ষমতাসীনরা যে বিএনপির সমালোচনা করছে তার পরিপ্রেক্ষিতে ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের মুখে নৈতিকতা স্খলনের কথা শোভা পায় না।

 


মন্তব্য