kalerkantho


হাছান মাহমুদ বললেন

আদালতের এই রায় জনগণের কাছে অত্যন্ত প্রত্যাশিত

বাসস   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ও তাঁর ছেলে তারেক রহমানকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আদালতের দেওয়া কারাদণ্ড ও জরিমানার রায় ছিল জনগণের কাছে অত্যন্ত প্রত্যাশিত। এই রায়ের মাধ্যমে দেশে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা, আইনের দৃষ্টিতে যে সবাই সমান ও আইনের ঊর্ধ্বে যে কেউ নন তা প্রমাণ হয়েছে।

‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়—আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার’ শীর্ষক এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. হাছান মাহমুদ এ কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট গতকাল শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এই আলোচনাসভার আয়োজন করে।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগ নেতা লায়ন চিত্তরঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির (জেপি) অতিরিক্ত মহাসচিব সাদেক সিদ্দিকী, সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল আমিন রুহুল, মিনহাজ উদ্দিন মিন্টু, সংগঠনের নেতা মিজানুর রহমান বিটু, ইদ্রিস আহমেদ মল্লিক প্রমুখ বক্তব্য দেন। সভা পরিচালনা করেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ঢাকা বিভাগীয় শাখার সহসভাপতি নওশের আলী।

আওয়ামী লীগের অন্যতম এই মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতের দেওয়া রায় বাংলাদেশের ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে বলে উল্লেখ করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘এই রায়ে জনগণ অত্যন্ত খুশি হয়েছে। আমরা কারও আবেগ নিয়ে উপহাস করতে চাই না (সংবাদ সম্মেলনে রিজভী আহমেদের কান্না)। তাঁদের নেত্রীর প্রতি তাঁদের আবেগ থাকতেই পারে। কিন্তু প্রশ্নটা সেখানেই, ২০১৪ সালে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার নির্দেশে পেট্রলবোমা মেরে অসংখ্য মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা ও অঙ্গার করার সময় তাঁদের কান্না করতে দেখা যায়নি। আপনাদের নেত্রীকে যখন আদালতের রায়ে বাড়ি ছাড়তে হয়, তখন কাঁদেন, দুর্নীতির দায়ে সাজা হলে কাঁদেন। কিন্তু যখন জনগণের কষ্টের কারণ হয়ে যান তখন কাঁদেন না।’



মন্তব্য