kalerkantho


সৌদির সঙ্গে চুক্তি

এ বছরও হজে যাবেন এক লাখ ২৭ হাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সরকারি-বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এবারও এক লাখ ২৭ হাজারের মতো বাংলাদেশি পবিত্র হজব্রত পালনের সুযোগ পাচ্ছেন। এ বিষয়ে মন্ত্রী পর্যায়ে সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের চুক্তি হয়েছে। বাংলাদেশের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছেন সৌদি সফররত ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। তবে মূল চুক্তি সম্পাদিত হলেও এখনো হজ সার্ভিসসংশ্লিষ্ট বেশ কিছু বিষয়ে চুক্তি বাকি রয়ে গেছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্ম সচিব জানান, এ বছরের হজের মূল চুক্তি সম্পাদিত হয় গত রবিবার। এতে হজযাত্রীর কোটা আগের মতোই এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন থাকছে। এই চুক্তির আলোকে এবারের হজ প্যাকেজসহ চূড়ান্ত নিয়মনীতি ঘোষণা করবে মন্ত্রণালয়। আগামীকাল ২১ জানুয়ারি মন্ত্রীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে। এরপরই হজ প্যাকেজ ঘোষণার তারিখ নির্ধারণ করা হবে।

জানা গেছে, ২০১৭ সালে বাংলাদেশি হজযাত্রীদের কোটা নির্ধারিত ছিল এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। এর মধ্যে ১০ হাজার সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবং বাকিদের বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পাঠানোর নিয়ম ছিল। তবে কোটার তুলনায় আগ্রহীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় অনেকেই কাঙ্ক্ষিত সময়ে হজে যেতে পারছেন না। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এ বছর হজযাত্রীর কোটা বাড়ানোর দাবি ছিল হজ এজেন্সি মালিকদের সংগঠন হাবসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মহলের।

হজ চুক্তি-২০১৮ সম্পাদনের লক্ষ্যে ১১ জানুয়ারি সৌদি আরবের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল। মন্ত্রীর সফরসঙ্গীরা হলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব এস এম গোলাম ফারুক, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আনিছুর রহমান, যুগ্ম সচিব (হজ) মো. হাফিজ উদ্দিন ও ধর্মমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মো. আবু সাইদ।

১৪ এজেন্সিকে শো-কজ : গত বছর হজের সময় সরকারি ব্যবস্থাপনার হাজিদের জন্য ভাড়া করা বাড়িতে অবৈধভাবে বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হাজিদের রেখে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার অভিযোগে ১৪ বেসরকারি হজ এজেন্সিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

অভিযুক্ত এজেন্সিগুলো হলো জিয়ারত ই কাবা ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেলস, মেসার্স আহসান ট্রাভেল ইন্টারন্যাশনাল, ট্রাভেল এজেন্ট (আবদুল্লাহ হজ কাফেলা), আল জিয়ারত ইন্টারন্যাশনাল, মেসার্স এম নুরে মদিনা ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, আল আমানত ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেলস্, মেসার্স জামান ইন্টারপ্রাইজ, সঞ্জরি ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, জাবেদ এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, আল মদিনা হজ অ্যান্ড ট্রাভেলস সার্ভিসেস, ইব্রাহিম ট্রাভেলস, জেনাস ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, কে বি এয়ার ইন্টারন্যাশনাল ও আনাস ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস।



মন্তব্য