kalerkantho


ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট, ভোগান্তি

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গতকাল শুক্রবার কোনাবাড়ী থেকে সুত্রাপুর এবং চন্দ্রামোড় থেকে জিরানী পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত তীব্র এ যানজটে আটকে পড়ে চরম ভোগান্তিতে পড়ে যাত্রীরা। ছুটির দিন যাত্রীর চাপ এবং মহাসড়কে চার লেনের কাজ চলায় এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ।

তবে যাত্রীদের অভিযোগ, চালকরা এলোমেলোভাবে রংসাইড দিয়ে যানবাহন নিয়ে ঢুকে পড়লেও তা নিয়ন্ত্রণে পুলিশ না থাকায় এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, গতকাল শুক্রবার সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈরে মহাসড়ক থেকে  বিভিন্ন আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে বিনোদন পার্কে বড় বড় বাস প্রবেশ করতে থাকে। এতে মহাসড়কে চলাচলরত অন্য যানবাহনগুলোর চলতে হয় ধীরগতিতে। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানজট তীব্র আকার ধারণ করে। মহাসড়কের কোনাবাড়ী থেকে কালিয়াকৈরের সুত্রাপুর বোর্ডঘর এবং চন্দ্রা থেকে জিরানী পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। 

গাজীপুরগামী পলাশ পরিবহনের যাত্রী আবু হেনা বলেন, ‘সকালে গাজীপুর যাওয়ার জন্য নবীনগর থেকে বাসে উঠি। কিন্তু চন্দ্রা আসার পর যানজটের কবলে পড়ি। প্রায় ১২টা বাজল, কিন্তু এখনো গন্তব্যে পৌঁছাতে পারলাম না।’ 

উত্তরবঙ্গ থেকে ছেড়ে আসা কাঁচামালবাহী ট্রাকের চালক ফারেজ মিয়া বলেন, ‘ভোর রাতে আলু ভরে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হই। কিন্তু মির্জাপুরের পরে এসে কিছুটা যানজটের কবলে পড়ি। চন্দ্রা আসার পর যেন একেবারেই আটকে যাই।’

সালনা হাইওয়ে থানার ওসি বাসুদেব সিনহা বলেন, ‘ছুটির দিন হওয়ায় সড়কে গাড়ির চাপ অন্য দিনের চাইতে বেশি। এ ছাড়া চার লেনের কাজ চলা এবং সকালে একটি গাড়ি বিকল হওয়ায় এ যানজটের সৃষ্টি হয়।’



মন্তব্য