kalerkantho


মেলার পর্দা নামছে

ছুটির দিনে উপচে পড়া ভিড় স্মার্টফোন মেলায়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বিশেষ মূল্যছাড় আর উপহারের মধ্য দিয়ে ছুটির দিনে রাজধানীতে জমে ওঠে ‘টেকশহর ডটকম স্মার্টফোন অ্যান্ড ট্যাব এক্সপো ২০১৮’। তিন দিনের এই মেলা শেষ হচ্ছে আজ শনিবার। গতকাল শুক্রবার সকাল থেকেই দর্শনার্থীদের পদচারণে মুখরিত হয়ে ওঠে ঢাকার আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র (বিআইসিসি)। আয়োজকরা জানান, ছুটির দিন থাকায় বড়দের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ ছিল দেখার মতো। বিক্রিও হচ্ছে বেশ।

মেলার আয়োজক এক্সপো মেকারের কর্মকর্তারা জানান, প্রদর্শনী উপলক্ষে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বিশেষ ছাড় ও উপহার দিচ্ছে। দর্শকরা প্রযুক্তির আধুনিক সব স্মার্ট ডিভাইস যাচাই-বাছাই করে দেখতে ও কিনতে পারছে। রয়েছে অন্য অনেক আয়োজন। মেলায় দেশি-বিদেশি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে স্যামসাং, টেকনো, শাওমি, উই, হুয়াওয়ে, এলজি স্মার্টফোন, অপ্পো, সিম্ফনি, লাভা, নকিয়া, লেনোভো, আসুস জেনফোন, উইনম্যাক্স, মাইক্রোম্যাক্স, ডিসিএল, ডিটেল, এডাটা, কিকসা ডটকম, আজকের ডিল, মেঘনা ব্যাংক ট্যাপ এন পে, কুইক ফিক্স, বিজয় ডিজিটালসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ড ও প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করেছে। মেলা উপলক্ষে ইতিমধ্যে ব্র্যান্ডগুলো নানা ধরনের ছাড় উপহার দিচ্ছে।

মেলায় স্যামসাং মোবাইলে রয়েছে নির্দিষ্ট কিছু মডেলের স্মার্টফোনের ওপর নির্দিষ্ট পরিমাণ মূলছাড়। এ ছাড়া গ্যালাক্সি এ৮ প্লাস ফোন মেলার প্রথম দিন থেকেই এর প্রি অর্ডার করা যাচ্ছে। রয়েছে নানা ধরনের উপহার—চাবির রিং, ট্র্যাভেল ব্যাগ, সোয়েটার, জ্যাকেট, লেদার বক্স, ভিয়ারগিয়ারসহ আরো অনেক কিছু।

টেকনো মোবাইল টেকশহর স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলায় ফোনের মূল্যের ওপর ১০ শতাংশ মূল্যছাড় দিচ্ছে। এ ছাড়া প্রতিটি ফোনের জন্য রয়েছে আলাদা উপহার। উপহার হিসেবে রয়েছে ব্যাকপ্যাক, টি-শার্ট, ক্যাপ, সেলফি স্টিক ও চাবির রিং।

মেলাতে শাওমির প্রতিটি হ্যান্ডসেটে রয়েছে ফ্রি উইন্টার জ্যাকেট। এ ছাড়া প্রতিদিন র‌্যাফেল ড্র রয়েছে শাওমি স্টলে। উই মোবাইল স্টলে মিলছে একটি কিনলে একটি ফ্রি অফার। এ ছাড়া রয়েছে সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যছাড়। এ ছাড়া রয়েছে ব্লুটুথ, ব্যাক কভার, টি-শার্ট, ব্যাকপ্যাক।

হুয়াওয়ে টেকনোলজিস বাংলাদেশ স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলায় সর্বোচ্চ ২০ শতাংশ মূল্যছাড় দিচ্ছে। এ ছাড়া রয়েছে ট্যাব ও ফোনের জন্য আলাদা উপহার।

মেলায় এলজি মোবাইলের ছয়টি মডেলের স্মার্টফোন রয়েছে। আট হাজার টাকা থেকে শুরু এগুলোর দাম। উপহার হিসেবে রয়েছে ব্যাকপ্যাক, জ্যাকেট, ক্যাপ, ব্লুটুথ স্পিকার। এ ছাড়া ক্রেতাদের পিটিসি ব্যাংক চেক দিয়ে কিস্তিতে ফোন কেনার সুযোগও রয়েছে।

অপ্পো ফোন কিনলেই উপহার হিসেবে যাওয়া যাবে গিফট বক্স। গিফট বক্সে রয়েছে সেলফি স্টিক, হেড ফোন, ওয়াটার পট, কি রিং। নির্দিষ্ট কিছু ফোনের ওপর রয়েছে মূল্যছাড়। এ ছাড়া মেলায় অপ্পো এফ৫ ৬ জিবি রেড ফোন পাওয়া যাচ্ছে।

সিম্ফনি স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলায় ৫ শতাংশ ক্যাশব্যাক অফার দিচ্ছে। রয়েছে নির্দিষ্ট বেশ কিছু মডেলের স্মার্টফোনের ওপর ৫ শতাংশ ডিসকাউন্ট। উপহার হিসেবে রয়েছে টি-শার্ট, সেলফি স্টিক, মোবাইল রিং, চাবির রিং, ব্লুটুথ স্পিকার, পাওয়ার ব্যাংক ও ব্যাকপ্যাক।

নকিয়া মোবাইলে ৫০০ টাকা ছাড়া রয়েছে। এ ছাড়া লাভা, লেনোভো, ডিটেল, ডিসিএল, উইনম্যাক্স, মাইক্রোম্যাক্সের স্মার্টফোন মেলায় পাওয়া যাচ্ছে। স্মার্টফোন ছাড়াও মেলায় স্মার্টফোনের আনুষঙ্গিক গ্যাজেট বিক্রি করবে এডাটা, কিকশা ডটকম, আজকের ডিলসহ আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠান। রয়েছে মেঘনা ব্যাংক ট্যাপ এন পে, কুইক ফিক্স এবং অল্প দামে ট্যাবলেট নিয়ে এসেছে বিজয় ডিজিটালের স্টল।

ডিভাইস মেরামতের নিশ্চয়তা নিয়ে মেলায় এসেছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান কুইক ফিক্স। সেবাটির মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা স্যামসাং, হুয়াওয়ে, অপ্পো, ভিভো, শাওমি, অ্যাপল ও অন্যান্য ব্র্যান্ডের ডিভাইস রিপেয়ার করতে পারবেন। মেলা উপলক্ষে কুইক ফিক্সের স্টলে বুকিং দিয়ে প্রথম রিপেয়ারে পাওয়া যাবে ১০ শতাংশ ডিসকাউন্ট। সেবাটি নেওয়ার জন্য কুইক ফিক্সের ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

গেম তৈরির নির্দেশনা পেলেন তরুণরা : এক্সপোর প্রথম দিনে অনুষ্ঠিত হয় ‘মোবাইল অ্যাপ ও গেইম : সম্ভাবনা ও করণীয়’ বিষয়ক সেমিনার। এডুমেকার ও টেকশহরের আয়োজনে এই সেমিনারটিতে কিনোট উপস্থাপন করেন বিশ্বমাতানো গেম ট্যাপ ট্যাপ অ্যান্টসের নির্মাতা এবং রাইজআপ ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও এরশাদুল হক। সেমিনারটি মডারেটও করেন তিনি।

সেমিনারে মাইন্ডফিশার গেমসের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও জামিল রশিদ বলেন, দেশীয় বাজার লক্ষ্য করে ভালো গেম তৈরি করলে সাড়া পাওয়া যাবে। নতুনদের গেম তৈরি করতে হলে কোয়ালিটির দিকে নজর দিতে হবে। বিনিয়োগের দিক চিন্তা করে ছোট ছোট কিছু গেম তৈরি করে শুরু করা উচিত। তিনি বলনে, গেম তৈরি শিখতে হলে ধৈর্য ধরে কাজ করতে হবে। এতে কোনো শর্টকাট উপায় নেই। ধৈর্য ধরলে সফলতা আসবেই। এ ছাড়া ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক রিয়াদ হোসেন এ বিষয়ে বাংলাদেশের সম্ভাবনার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

মেলা প্রতিদিনের মতো আজও সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে।



মন্তব্য