kalerkantho


সেমিনারে আলোচকরা

‘ড. আহমদ শরীফকে অস্বীকার করা যায় না’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



‘ড. আহমদ শরীফকে অস্বীকার করা যায় না’

গতকাল বাংলা একাডেমিতে মারুফুল ইসলামের নতুন কাব্যগ্রন্থ ‘নতুন করে পাব বলে’-এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

সমাজ-সাহিত্য-সংস্কৃতির জগতে ড. আহমদ শরীফকে উপেক্ষা করা যায়; তবে কোনো অবস্থায়ই তাঁর বিশাল কীর্তি অস্বীকার করা যায় না। তিনি সবার কাছে প্রিয় হওয়ার দুর্বলতাকে ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।

গতকাল বুধবার বিকেলে ডক্টর আহমদ শরীফ স্মরণে আয়োজিত সেমিনারে আলোচকরা এসব কথা বলেন। জাতীয় জাদুঘরের উদ্যোগে কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেমিনারে ‘ডক্টর আহমদ শরীফ : মনীষা’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন লেখক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সাবেক অধ্যাপক আহমদ কবির।

অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খান বলেন, দেশ-কাল-সমাজ ও রাষ্ট্রের প্রথাগত পরিবর্তনের লক্ষ্যে সব সময় তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিলেন। মানুষের আর্থসামাজিক মুক্তিসহ সমাজতন্ত্রের প্রতি ছিল তাঁর প্রচণ্ড আগ্রহ। সমাজ, সাহিত্য, সংস্কৃতি, রাজনীতি, দর্শন, ইতিহাসসহ প্রায় সব বিষয়ে তিনি অজস্র লিখেছেন।

সেমিনারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক নেহাল করিম বলেন, ‘প্রতিবছর গড়ে দুটি করে ড. আহমদ শরীফের মৌলিক রচনা নিয়ে বই প্রকাশিত হয়েছে। তাঁর রচিত বই শুধু অপঠিতই নয়, অগোচরেও থেকে গেছে।’ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লেখক অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক।

‘নতুন করে পাবো বলে’ গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব

কবি মারুফুল ইসলামের ‘নতুন করে পাবো বলে’ কাব্যগ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব গতকাল বুধবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শিল্পী রেজোয়ানা চৌধুরী বন্যার কণ্ঠে ‘তুমি হঠাৎ হাওয়ায় ভেসে আসা ধন, তোমায় নতুন করে পাবো বলে’ রবীন্দ্রসংগীতের মাধ্যমে শুরু হয় অনুষ্ঠান। স্বাগত বক্তব্য দেন অন্যপ্রকাশ প্রকাশনীর প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম। শিল্পী জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় নতুন কাব্যগ্রন্থটি থেকে কয়েকটি কবিতা আবৃত্তি করেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। তিনি বলেন, কাব্যগ্রন্থটিতে বাংলার চিরন্তন রূপ যেমন আছে, তেমনি মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু, সামরিক শাসনের কথাও আছে। এই বইয়ে ইতিহাসের ফাঁকে ফাঁকে ব্যক্তিগত অনুভূতিও স্থান পেয়েছে। বাংলাদেশ ও বাংলা সাহিত্যের ধারাবাহিকতার সঙ্গে কবিতাকে যুক্ত করেছেন মারুফুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী, অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা ও কবি তুষার দাস। অনুভূতি প্রকাশ ও কবিতা আবৃত্তি করেন লেখক মারুফুল ইসলাম। ‘নতুন করে পাবো বলে’ গ্রন্থটিতে ১০৮টি কবিতা স্থান পেয়েছে। প্রকাশ করেছে অন্যপ্রকাশ। প্রচ্ছদ এঁকেছেন সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম। বইটির দাম ২৮০ টাকা।


মন্তব্য