kalerkantho


দিনাজপুরে আইনজীবীকে সাজা

সেই এসি ল্যান্ডকে ভর্ৎসনা করে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এক জ্যেষ্ঠ আইনজীবীকে সাজা দেওয়া সেই এসি ল্যান্ড বিরোদা রানী রায়কে ভর্ৎসনা করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ভবিষ্যতে এ ধরনের আচরণ না করার জন্য তাঁকে সতর্ক করে দিয়েছেন আদালত। বিরোদা রানী রায়কে উদ্দেশ করে আদালত বলেছেন, ‘আপনি শুধুই একজন প্রবীণ আইনজীবীকে কক্ষ থেকে বের করে দেননি, আপনি নিজের কক্ষে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাঁকে সাজা দিয়েছেন। আপনার এত ক্ষমতা?’

গতকাল বুধবার বিচারপতি মো. হাবিবুল গণি ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের অবকাশকালীন হাইকোর্ট বেঞ্চ বর্তমানে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার সহকারী কমিশনার (এসি ল্যান্ড) বিরোদা রানী রায়কে সতর্ক করেন। আজ বৃহস্পতিবার তাঁকে লিখিতভাবে এ আবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি পরবর্তী আদেশের জন্য আজ দিন ধার্য করা হয়েছে। 

দিনাজপুরের আইনজীবী নিরোদবিহারী রায়কে সাজা দেওয়ার ঘটনায় কালের কণ্ঠ’র অনলাইনে ‘বসতে চাওয়ায় আইনজীবীকে সাজা এসি ল্যান্ডের’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন গতকাল আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের দুজন আইনজীবী। এরপর এ বিষয়ে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে আদেশ দেন আদালত।

গত ১৭ ডিসেম্বর স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এক আদেশে বিরোদা রানী রায়কে তলব করেন হাইকোর্ট। তাঁকে ২৭ ডিসেম্বর হাইকোর্টে হাজির হয়ে কোন কর্তৃত্ববলে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে দিনাজপুরের আইনজীবী নিরোদবিহারী রায়কে সাজা দিয়েছেন তার ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়। এ নির্দেশে গতকাল হাইকোর্টে হাজির হন বিরোদা রানী রায়। শুনানিকালে প্রায় আধাঘণ্টা আদালত কক্ষে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় ভুক্তভোগী আইনজীবী নিরোদবিহারী রায় উপস্থিত ছিলেন।

এসি ল্যান্ডের পক্ষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মামুন মাহবুব একটি লিখিত আবেদন দিয়ে আদালতে বলেন, ‘ওই দিনের ঘটনায় নিঃশর্ত ক্ষমা চাচ্ছি।’ এ সময় আদালত বলেন, ‘যথাযথভাবে আবেদনটি করা হয়নি। তাই আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) যথাযথভাবে লিখিতভাবে আবেদন দাখিল করবেন।’

এ পর্যায়ে আদালত তাঁর কাছে জানতে চান যে এসি ল্যান্ড উপস্থিত হয়েছেন কি না? জবাবে হ্যাঁসূচক জবাব দেন এ আইনজীবী। এ সময় আদালত আইনজীবীকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘মোবাইল কোর্ট (ভ্রাম্যমাণ আদালত) নিয়ে এত তোলপাড় হচ্ছে। সংবাদমাধ্যমে এ নিয়ে রিপোর্ট হচ্ছে। কয়েক দিন আগে হাইকোর্টের আরেকটি বেঞ্চ এ বিষয়ে আদেশ দিয়েছেন। উনি (এসি ল্যান্ড) কি এসব নিউজ পড়েন না?’ 

এরপর এসি ল্যান্ড বিরোদা রানী রায়কে ডায়াসের সামনে ডেকে তাঁর কাছে সাজা দেওয়ার বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে চান। জবাবে বিরোদা রানী রায় বলেন, জমিজমাসংক্রান্ত একটি মামলার শুনানি চলছিল। এ সময় অ্যাডভোকেট নিরোদবিহারী রায় সেখানে উপস্থিত হন। কিন্তু কক্ষে বসার জায়গা না থাকায় তাঁকে বাইরে যেতে বলা হয়।



মন্তব্য