kalerkantho


গুণে অনন্য ভাত

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



গুণে অনন্য ভাত

ভেতো বাঙালিদের প্রধান খাবারটি কিন্তু দারুণ স্বাস্থ্যকর। এ কারণেই হয়তো পৃথিবীর অনেক জায়গার প্রধান খাদ্য এই ভাত। একেক চালে পুষ্টিগুণে ভিন্নতা থাকে। তবে যে চালই খান না কেন, পুষ্টি মিলবেই। এখানে বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন ভাতের স্বাস্থ্যগুণের কথা

 

শক্তি প্রদান

ভাতে প্রচুর কার্বোহাইড্রেট মেলে। এটা দেহকে সক্রিয় রাখতে শক্তি দেয়। মস্তিষ্কের স্বাভাবিক কাজের গতি ত্বরান্বিত করে। কার্বোহাইড্রেটকে দেহ প্রক্রিয়াজাত করে কার্যকর ও ব্যবহারযোগ্য শক্তিতে রূপান্তর করে। পাশাপাশি এর ভিটামিন, খনিজ ও অর্গানিক উপাদান দেহের প্রত্যেক প্রত্যঙ্গের বিপাকক্রিয়াকে সুষ্ঠু করে তোলে।

স্থূলতা প্রতিরোধ

স্বাস্থ্যের জন্য সেরা খাবারগুলোর মধ্যে একটি ভাত। ভারসাম্যপূর্ণ খাবারের তালিকা প্রস্তুত করতে ভাতের তুলনা নেই। ক্ষতিকর ফ্যাট, কোলেস্টেরল বা সোডিয়াম নেই। কোনো নেতিবাচক প্রভাব না ছড়িয়েই পুষ্টি উপাদান সরবরাহ করে। এর ফ্যাট, কোলেস্টেরল আর সোডিয়াম নিম্নমাত্রায় থাকে বলে তা স্থূলতা প্রতিরোধে সহায়ক।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ

ভাতে খুব কম সোডিয়াম রয়েছে। তাই যারা উচ্চ রক্তচাপে ভোগে, তাদের জন্য আদর্শ খাবার বিবেচিত হয়। খাবার লবণ রক্তবাহী নালিকে সংকুচিত করে। এতে হৃদযন্ত্রের ওপর চাপ পড়ে। ফলে রক্তচাপ বেড়ে যায়। ভাতে বেশি সোডিয়াম নেই বলে তা হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায় না।

ক্যান্সার প্রতিরোধ

বাদামি চালের মতো চালে থাকে ভক্ষণযোগ্য ফাইবার। বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার প্রতিরোধের গুণ রয়েছে এর। বিভিন্ন বিজ্ঞানীর গবেষণায় বলা হয়েছে, দেহে ক্যান্সার গজানোর যাবতীয় প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে এই ফাইবার। বিশেষ করে কলোরেকটাল ও ইনটেস্টিনাল ক্যান্সার ঠেকাতে খুবই কাজের বাদামি চাল। এর ভিটামিন ‘সি’, ভিটামিন ‘এ’, ফেনোলিক এবং ফ্লেভোনয়েডের মতো প্রাকৃতিক উপাদান দেহের ভেতরে ঘুরে বেড়ানো বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয়। ভাত খেলে মেলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা দেহকে শক্তিশালী ঢাল তৈরি করে দেয়।

ত্বকের যত্ন

চিকিৎসাবিজ্ঞান বলে, চালের গুঁড়া পেস্টের মতো তৈরি করে ত্বকে মাখলে ক্ষতিগ্রস্ত অংশগুলো মেরামত হয়ে যায়। আয়ুর্বেদে ভাতের মাড় তো প্রেসক্রিপশনেই লিখে দেওয়া হয়। এটি ত্বকের প্রদাহ রোধ করে। চালে থাকে অ্যান্টি-ইনফ্লামাটরি উপাদান। রূপচর্চায় চালের গুঁড়া কিংবা এটি দিয়ে বানানো উপকরণ ত্বকে সহসা বলিরেখা পড়তে দেয় না।

অর্গানিক ফ্যাক্টস অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার



মন্তব্য