kalerkantho


আ. লীগ নেতা গুলিবিদ্ধ

বরিশালে বিএনপির ৮ নেতাকর্মী আটক

বরিশাল অফিস   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলায় আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ সুলতান হোসেন গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় বিএনপির আট নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক ব্যক্তিরা হলেন নেয়ামতি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুস সালাম মৃধা, ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য শেখ জসিম, ফয়সাল হাওলাদার, জহিরুল ইসলাম, সোহেল খান, মো. ইব্রাহীম মিয়া, কামরুল ইসলাম ও বশির হাওলাদার।

বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি শাহ আজিজুর রহমান জানান, ঘটনার পর থেকে মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে আটজনকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচজনের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে। বাকিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তারাও এ মামলায় আসামি হবে। এ ছাড়া এ ঘটনায় জড়িত অন্যদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

বিএনপি নেতাকর্মীদের আটকের অভিযোগ অস্বীকার করে ওসি বলেন, ‘ঘটনায় জড়িতদের আটক করা হচ্ছে। তাদের মধ্যে কে কোন দল করে আমার জানা নেই।’

এদিকে মঙ্গলবার সকালে বরিশালের পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম ঘটনাস্থল মহেষপুর বাজার পরিদর্শন করেছেন। ওই সময় তিনি প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে হামলার ঘটনার বর্ণনা শোনেন।

হামলায় আহত নেয়ামতি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিমল সাহা অভিযোগ করেন, বিএনপি নেতা ছালাম সিকদারসহ মুখোশধারী ১০-১২ জন সন্ত্রাসী সেখানে গিয়ে তাঁদের মারধর করতে থাকে। মারধরের একপর্যায়ে তিনি পড়ে গেলে সন্ত্রাসীরা সুলতানকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে সুলতান রাস্তায় লুটিয়ে পড়লে অস্ত্রধারীরা পালিয়ে যায়।

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের চিকিৎসক ডা. শাহে আলম জানিয়েছেন, সুলতানের পেট থেকে গুলি বের করা হয়েছে। তাঁর শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা হচ্ছে। তবে ধীরে ধীরে তাঁর অবস্থার উন্নতি হবে বলে জানান তিনি।

এই হামলায় বিএনপির সম্পৃক্ততা অস্বীকার করে উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন খান জানিয়েছেন, আওয়ামী লীগের নিজেদের দ্বন্দ্বে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। সেখানে অহেতুক বিএনপি নেতাকর্মীদের জড়িয়ে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে।



মন্তব্য