kalerkantho


নিম্নমানের বীজ

তানোরে ক্ষতিপূরণ চেয়ে কৃষকদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ও তানোর প্রতিনিধি   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে নিম্নমানের বোরো বীজ কিনে প্রতারিত হয়েছে হাজার হাজার কৃষক। প্রতারিত হয়ে তারা চলতি বোরো মৌসুমের জন্য এখনো বীজতলায় বীজ বপন করতে পারেনি। এ অবস্থায় ক্ষতিপূরণের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার কৃষকরা তানোরে মানববন্ধন করেছে।

মঙ্গলবার সকালে তানোর উপজেলার মুণ্ডুমালা এলাকার প্রায় ২৫-৩০ জন কৃষক স্থানীয় বীজ ডিলার সাজ্জাদ ও হাসান সিড স্টোরের কাছে বীজের ক্ষতিপূরণ চেয়ে না পেয়ে প্রতিবাদে রাস্তায় নামে।

কৃষকরা জানায়, রাজশাহীর তানোর-গোদাগাড়ী উপজেলা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার হাজার হাজার কৃষক এবার বীজ কিনে প্রতারিত হয়েছে। প্রতারিত কৃষকরা স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তা ও বীজ ডিলারদের কাছে অভিযোগ করেও কোনো ফল পাচ্ছে না। এলাকার অনেক কৃষকের বীজ নষ্ট হয়ে যাওয়ায় বোরো আবাদ নিয়ে শঙ্কার মধ্যে পড়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা জানায়, সাজ্জাদ ও হাসান সিডের বীজ বাজার থেকে ১০ কেজি ওজনের ব্যাগ ৬০০ টাকা করে কিনে বপনের পদ্ধতি অনুসরণ করে বীজতলা তৈরি করেছিল। কিন্তু নিম্নমানের কারণে তারা বীজ বপন করতে পারেনি। ফলে তাদের আর্থিকভাবে ক্ষতির পাশাপাশি সময় নষ্ট হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই এলাকার এক বীজ ডিলার জানান, সাজ্জাদ-হাসান সিড একই মালিকের। তাদের বীজের শুরুতে ভালো রেজাল্ট ছিল। চলতি মৌসুমে বাজারে ধানের ভালো দাম পাওয়ায় কৃষকরা এবার বোরো আবাদে ঝুঁকেছে।

এসব নিয়ে কথা হলে গোদাগাড়ীর সাজ্জাদ-হাসান সিডের নির্বাহী পরিচালক হাসান আলী বলেন, গোদাগাড়ী ও তানোর উপজেলার কিছু কৃষক বীজ কিনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কৃষকরা এমন অভিযোগ করেছে। ক্ষতিগ্রস্তদের আংশিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

তানোর উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা সমসের আলী জানান, চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূল থাকায় বোরো বীজতলা অন্য সব বছরের চেয়ে ভালো আছে। তবে কিছু কৃষক বোরো বীজ কিনে ঠকেছে।



মন্তব্য