kalerkantho


সাধারণ পরিষদে ‘শান্তির সংস্কৃতি’ প্রস্তাব গৃহীত

উত্থাপক বাংলাদেশ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



প্রতিবছরের মতো এবারও জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে বাংলাদেশ উত্থাপিত ‘শান্তির সংস্কৃতি’ প্রস্তাব  সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়েছে। গত সোমবার রাতে নিউ ইয়র্কে সাধারণ পরিষদের এক সভায় উপস্থিত সব সদস্য রাষ্ট্রের সমর্থনে এই প্রস্তাব গৃহীত হয়। নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে বাংলাদেশের  স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন প্রস্তাবটি উপস্থাপন করেন।

রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন বলেন, “আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগতভাবে এ বিষয়টির প্রতি বিশেষ আগ্রহ রয়েছে এবং এ কারণে তিনি সমাজের সবাইকে সঙ্গে নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে ‘শান্তির সংস্কৃতি’ বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছেন।”

রাষ্ট্রদূত বলেন, সব মানুষই ‘শান্তির সংস্কৃতি’ প্রত্যাশা করে। আর শান্তির সংস্কৃতির বিকাশ ও চর্চা হচ্ছে বিভেদ এবং বিভাজনের মতো বিষয়গুলোকে সৃজনশীলতার মাধ্যমে সমাধান করা।

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন গতকাল মঙ্গলবার ভোরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, বাংলাদেশ ১৯৯৭ সালে ‘শান্তির সংস্কৃতি’ ধারণাটি প্রথম উপস্থাপন করে। এটি সাধারণ পরিষদে প্রস্তাব হিসেবে গৃহীত হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাপী ‘শান্তির সংস্কৃতি দশক’ উদ্যাপিত হয়। ২০০০ সাল থেকে প্রতিবছর বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন এ প্রস্তাবটি জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে উপস্থাপন করে আসছে, যা প্রতিবছরই সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হচ্ছে।


মন্তব্য