kalerkantho


বঙ্গবন্ধুর ভাষণের স্বীকৃতিতে শিশু একাডেমিতে আনন্দ সমাবেশ

কাল থেকে সাংস্কৃতিক জোটের বিজয় উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বঙ্গবন্ধুর ভাষণের স্বীকৃতিতে শিশু একাডেমিতে আনন্দ সমাবেশ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ ইউনেসকোর বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভ করায় গতকাল সোমবার শিশু একাডেমি প্রাঙ্গণে আনন্দ সমাবেশ করেছে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এদিকে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের বিজয় উৎসব শুরু হচ্ছে আগামীকাল বুধবার। রাজধানীর নানা প্রান্তের আটটি মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে এ উৎসবের সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠানমালা। গতকাল টিএসসিতে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে উৎসবের পরিকল্পনা উপস্থাপন করেন জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ।

শিশু একাডেমিতে অনুষ্ঠিত আনন্দ আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকির সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রেবেকা মমিন। সম্মানিত অতিথি ছিলেন জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ বেগম ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি।

একাডেমির পরিচালক ও ছড়াকার আনজীর লিটনের রচনা ও পরিচালনায় নৃত্যনাট্য ‘রক্তদিয়ে নাম লিখেছি’ পরিবেশন করে একাডেমির শিশুশিল্পীরা। সংগীত পরিবেশন করেন শাহীন সামাদ, তিমির নন্দী, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, তপন চৌধুরী, অনিমা মুক্তি গমেজ, ক্লোজআপ তারকা সাব্বির, বাঁধন, নওরীন ও পুণ্য। আবৃত্তি পরিবেশন করেন ড. শাহাদাৎ হোসেন নিপু ও মহিদুল ইসলাম।

বিজয় উৎসবের বিস্তারিত : সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বুধবার বিকেল ৪টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের বিজয় উৎসবের উদ্বোধন হবে। উৎসব স্লোগান নেওয়া হয়েছে বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতিপ্রাপ্ত বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ থেকে। সেই প্রতিপাদ্যটি হচ্ছে ‘৭ই মার্চ মুক্তি ও স্বাধীনতার ডাক বাংলার ঘরে ঘরে/৭ই মার্চ সম্পদ আজ বিশ্ব-মানবের তরে’। জোটের অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন ২০০ সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রায় তিন হাজার শিল্পী নানা পরিবেশনায় রাঙিয়ে তুলবেন উৎসব। থাকবে নৃত-গীত, কবিতা আবৃত্তি, পথনাটকের উপস্থাপনা ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী।

৭ মার্চের নাট্যোৎসব : ‘আমরা ফুরিয়ে যাই তোমাদের তরে অফুরান হতে’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে আট দিনব্যাপী ১২তম কেন্দ্রীয় নাট্যোৎসব। গতকাল সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে (টিএসসি) উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান এই উৎসবের উদ্বোধন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগ এই উৎসবের আয়োজন করেছে।

উদ্বোধনী দিনে গতকাল সৈয়দ শামসুল হকের নীল দর্শন উপন্যাস অবলম্বনে ‘নীল দর্শন’ ও রবীন্দ্রনাথের ‘চণ্ডালিকা’ নাটক প্রদর্শিত হয়।


মন্তব্য