kalerkantho


প্রথম জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস আজ

মরণোত্তর সম্মাননা পাচ্ছেন আনিসুল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



দেশে প্রথমবারের মতো ‘জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস’ উদ্যাপিত হচ্ছে আজ। ‘সবার জন্য নিরাপদ ইন্টারনেট’—প্রতিপাদ্যে দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়েছে সরকার।

দেশের তথ্য-প্রযুক্তি খাতের প্রসারে অবদান রাখায় ১২টি ক্যাটাগরিতে মোট ১৫ জনকে ‘ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ড ২০১৭’ দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সদ্য প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক তথ্য-প্রযুক্তির মাধ্যমে নাগরিক সেবায় অবদান রাখার জন্য মরণোত্তর সম্মাননা পাচ্ছেন বলে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহেমদ পলক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘২০০৮ সালের ১২ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগ সভাপতি, জননেত্রী শেখ হাসিনা রূপকল্প-২০২১ তথা ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণা করেন। ২০০৯ সালে আমরা জনগণের রায়ে রাষ্ট্র পরিচালনার সুযোগ পাওয়ার পর ক্রমান্বয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন শুরু করি। গত ২৭ নভেম্বর মন্ত্রিসভা ১২ ডিসেম্বর দিনটিকে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস হিসেবে ঘোষণা করে এবং এর মাধ্যমে আমরা চূড়ান্ত লক্ষ্যের দিকে আরো একধাপ এগিয়ে গেলাম।’

পলক আরো বলেন, ‘প্রতিবছর ১২ ডিসেম্বর আমরা দিবসটি উদ্যাপনের মাধ্যমে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের অবদান প্রচারের পাশাপাশি তরুণ প্রজন্ম যাতে তাদের মেধা-মননের মাধ্যমে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে নিজেদের সম্পৃক্ত করতে উদ্বুদ্ধ হয়, সে বিষয়ে ভূমিকা রাখতে সক্ষম হব।’

আইসিটি বিভাগ সূত্র জানায়, সকাল সাড়ে ৭টায় ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে দিবসটি উদ্‌যাপন শুরু হবে। সকাল ৮টায় শোভাযাত্রা, বিকেল ৩টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেমে আলোচনাসভা ও ‘জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পুরস্কার ২০১৭’ প্রদান অনুষ্ঠান হবে। এ ছাড়া বিকেল সাড়ে ৫টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মল চত্বরে ‘কনসার্ট ফর আইসিটি’র আয়োজন করা হয়েছে।

সকাল ৮টার শোভাযাত্রাটি শাহবাগে জাতীয় জাদুঘর প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শেষ হবে। শোভাযাত্রার উদ্বোধন করবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহেমদ পলক।

বিকেল ৩টার আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বিকেল সাড়ে ৫টার কনসার্টে সংগীত পরিবেশন করবেন জনপ্রিয় ব্যান্ডশিল্পী জেমস, গান বাংলার কৌশিক হোসেন তাপস এবং শেখ কামালের গড়া সংগীত সংগঠন ‘স্পন্দন’-এর শিল্পীরা।

এ ছাড়া দিবসটি উদ্যাপনে তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে ও ইয়াং বাংলার আয়োজনে অনলাইন প্রগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। আইসিটি অধিদপ্তর এবং বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সহযোগিতায় ৪১টি জেলার ১২৩টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত এই প্রতিযোগিতা হবে। প্রতিটি ল্যাব থেকে তিনটি দলে ১৫ জন শিক্ষার্থী এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে।



মন্তব্য