kalerkantho


ফাঁসির রায়ে পাকিস্তানের ফের উদ্বেগ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ফাঁসির রায়ে পাকিস্তানের ফের উদ্বেগ

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আসামিদের ফাঁসির রায়ে আবারও উদ্বেগ জানিয়েছে পাকিস্তান। গত বুধবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গাইবান্ধার সাবেক সংসদ সদস্য জামায়াত নেতা আবু সালেহ মুহম্মদ আবদুল আজিজ মিয়া ওরফে ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ দেন।

এর প্রতিক্রিয়ায় বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন যে পাকিস্তান এই ঘটনায় গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীদের ফিরিয়ে নেওয়া সংক্রান্ত ১৯৭৪ সালের ত্রিপক্ষীয় চুক্তির আবারও অপব্যাখ্যা করে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, সেখানে দায়মুক্তি দিয়ে বিচার না করার কথা বলা হয়েছিল। বাংলাদেশের উচিত তাদের সেই অঙ্গীকার রাখা। একাত্তরে ইতিহাসের জঘন্য গণহত্যা চালানো পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আরো বলেন, পুনর্মিলনের চেতনার আলোকে তারা এ বিষয়গুলো সমাধানে বিশ্বাসী।

এর আগেও একাত্তরের যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের প্রায় প্রতিটি মামলার রায়কে ঘিরে পাকিস্তান এমন প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে। বাংলাদেশ এটাকে এ দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নির্লজ্জ হস্তক্ষেপ হিসেবে অভিহিত করে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে।

কূটনীতিকরা জানান, ত্রিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় পাকিস্তান তার দেশের চিহ্নিত ১৯৪ যুদ্ধাপরাধীকে বিচার করার কথা বলে নিজের জিম্মায় নিয়েছিল। এরপর পাকিস্তান কার্যত তাদের দায়মুক্তি দিয়ে এ দেশে ৩০ লাখ বাংলাদেশিকে হত্যাসহ অন্যান্য যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধ অস্বীকার করে আসছে। বাংলাদেশ পাকিস্তানি বাহিনীর এ দেশীয় দোসরদের বিচার করার উদ্যোগ নিলে পাকিস্তান তাতে উদ্বেগ জানায়।

তবে পাকিস্তানের মুক্ত চিন্তার নাগরিকরা বলেছেন, এত বছর পর পাকিস্তান তার পুরনো দোসরদের পক্ষে বিবৃতি দিয়ে প্রমাণ করেছে যে তারা আসলেই পাকিস্তানের চর ছিল।


মন্তব্য