kalerkantho


শেবাচিমে ৪০ রোগীর মৃত্যু

সাবেক পরিচালকের অবহেলার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি

বরিশাল অফিস   

২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (শেবাচিম) গত ঈদের ছুটিতে ৪০ রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় তৎকালীন পরিচালকের অবহেলার প্রামাণ পেয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গঠন করা তদন্ত কমিটি। কমিটি জানিয়েছে, রোগীর মৃত্যুর সঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলার অভিযোগের সত্যতা রয়েছে।

তবে সদ্য সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ডা. সিরাজুল ইসলামের আর্থিক দুর্নীতির বিষয়ে মন্তব্য করেনি তদন্ত কমিটি।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় তদন্ত শুরু করে দুপুর ১টা পর্যন্ত কমিটির তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। কমিটির প্রধান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মশিউর রহমান (নার্সিং শাখা) ও সদস্য বরিশাল স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডা. মাহাবুবুর রহমান তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন। তাঁরা সাবেক পরিচালকের আর্থিক দুর্নীতির প্রমাণপত্র ঘেঁটে দেখেছেন।

তদন্ত কমিটির সদস্য বরিশাল স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডা. মাহাবুবুর রহমান বলেন, ‘আমরা শেবাচিম হাসপাতালের সাবেক পরিচালকের বিরুদ্ধে পাওয়া অভিযোগগুলো ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করেছি। ছুটির সময় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৪০ রোগীর মৃত্যুর বিষয়ে অন্তর্বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক ও কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি। রোগীর মৃত্যুর সাথে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলার অভিযোগের সত্যতা রয়েছে। ’ তবে সাবেক পরিচালকের আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিলের আগেই তিনি এখনই তেমন কিছু বলতে চাননি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে শেবাচিম হাসপাতালের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা কালের কণ্ঠকে বলেন, সাবেক পরিচালক ডা. সিরাজুল ইসলাম ইচ্ছামতো হাসপাতালের রেজিস্ট্রার, সহকারী রেজিস্ট্রার ও ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ছুটি দিয়েছেন।

আর এ কারণে চিকিৎসকশূন্য ছিল হাসপাতাল। তাই সেবা পায়নি রোগীরা। অন্যদিকে হাসপাতালে মোজাইক স্থাপন, হোস্টেলে নিরাপত্তা দেয়াল নির্মাণ এবং চাকরির নামে অর্থ আত্মসাতের প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি।

মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বর্তমান পরিচালক ডা. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তদন্ত কমিটির প্রধান হাসপাতালের বহির্বিভাগ পরিদর্শন করেছেন। সেখানে চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছেন।


মন্তব্য