kalerkantho


সিলেটে আ. লীগ নেতার বিরুদ্ধে চার কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলা

সিলেট অফিস   

২২ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক বিজিত চৌধুরীর বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাত ও হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগে দুটি মামলা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সিলেট মহানগর হাকিম আদালতে এ দুই মামলা করেন নগরের মিরাবাজারের মেসার্স সিটি ফার্নিচারের স্বত্বাধিকারী রাঙ্গা সিংহ ও তাঁর স্বামী নগেন্দ্র চন্দ্র বর্মণ।

আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক সাইফুল ইসলাম মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাজ উদ্দিন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় অভিযোগে বলা হয়েছে, ‘২০০৯ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত সময়ে বাদীদের কাছ থেকে বড় অঙ্কের টাকা চাঁদা হিসেবে নেন বিজিত চৌধুরী। এ ছাড়া তারাপুরের ভূমি জোরপূর্বক বিক্রির টাকাসহ চার কোটি টাকা আত্মসাত করেন বিজিত চৌধুরী। তিনি অর্থমন্ত্রীসহ বিভিন্ন মন্ত্রী, মোল্লা আবু কাওছার, মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কখনো ক্রীড়া সংস্থার, কখনো মন্ত্রীদের বন্ধু, কখনো পত্রিকার সম্পাদকসহ বিভিন্ন পরিচয় দিয়ে চাঁদা আদায় করেন। পাওনা টাকার বিপরীতে বাদীকে চেকও দেন বিজিত। কিন্তু ব্যাংকে টাকা তুলতে গেলে চেক ফেরত আসে। ’

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিজিত চৌধুরী বলেন, ‘নগেন্দ্র বর্মণ আমার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের কর্মচারী ছিলেন। পরে তিনি একটি ফার্নিচারের দোকান খুললে আমিও সেখানে কিছু টাকা বিনিয়োগ করি।

কিন্তু সেই বিনিয়োগের কোনো হিসাব আজ পর্যন্ত তিনি দেননি। এখন উল্টো আমার নামেই টাকা আত্মসাতের মামলা করা হয়েছে। ’

রাগীব আলীর দখলে থাকা তারাপুর চা বাগান উদ্ধারে সম্পৃক্ত থাকার কারণে তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন এই আওয়ামী লীগ নেতা।


মন্তব্য