kalerkantho


পুষ্টি বেটার লাইফ ফিটনেস

শীতের ব্যথা তাড়াতে ব্যায়াম

২২ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



শীতের ব্যথা তাড়াতে ব্যায়াম

আসছে শীত। আর শীত আসা মানেই লেপ-কম্বলের সদ্ব্যবহার।

বেশি সময় লেপের নিচে থাকা। শুধু কি তাই, অনেকেরই তো শুধু সোফায় বসে দিনের লম্বা একটা সময় কেটে যায়। কেউ কেউ একবার ভালোভাবে বসতে পারলে আর উঠতেই চায় না। দীর্ঘ সময় শুয়ে বা বসে থেকে সাময়িক সময়ের জন্য আরাম পাওয়া যায় বটে, তবে এটির ভবিষ্যৎ ফল কিন্তু মোটেও সুখকর নয়। কেননা এতে শরীরের ক্ষতি হচ্ছে। জেগে উঠছে মেরুদণ্ডের পুরনো ব্যথা। অনেকের তো সকালে ঘুম থেকে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে কোমর বা ঘাড়টা যেন শত্রুতে পরিণত হয়। অনুভূত হয় ব্যথা। এর কারণ একটাই, দীর্ঘক্ষণ শুয়ে বা বসে থাকা।

আগেই সতর্ক হয়ে এ অবস্থা থেকে দূরে থাকা যায়। আর কেউ যদি এ অবস্থার শিকার হয়, তার জন্যও আছে সমাধান। পশ্চার (অঙ্গস্থিতি) ঠিক আছে কি না, তা পরীক্ষা করে দেখতে হবে। এ জন্য মেরুদণ্ড টান টান অবস্থায় রাখতে হবে। কুঁকড়ে শুয়ে থাকলে বা গুটিয়ে বসে থাকলে মেরুদণ্ডও গোলাকার হয়ে যায়। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে দীর্ঘক্ষণ বসে না থেকে ১৫-২০ মিনিট অন্তর অল্প সময়ের জন্য হাঁটাচলা করুন। এতে নিতম্বের অংশের পেশিতে রক্তের সঞ্চালন ঠিক থাকবে। পেশি বেশি সংকুচিত হবে না। তা ছাড়া সাত-আট ঘণ্টার বেশি বিছানায় না থাকাটাই ভালো। টানা শুয়ে থাকলে কোমরে ব্যথা হতে পারে।

মেরুদণ্ডসংলগ্ন পেশির স্বাভাবিক দৈর্ঘ্য ঠিক থাকলে ব্যথা হবে না। পশ্চারের ভুলে এখানকার পেশি সংকুচিত হয়ে যায়। স্ট্রেচিং করলে পেশিগুলোর স্বাভাবিক দৈর্ঘ্য ফিরে আসে। এ জন্য নাইনটি নাইনটি স্ট্রেচিং, হ্যামস্ট্রিংয়ের এসএলআর, হাঁটু গেড়ে শোল্ডার ফ্লেক্সন স্ট্রেচ, বুকের ওপর অলটারনেট সুপারম্যান হোল্ড, বেঞ্চে ভর রেখে ব্রিজ, কোবরা রেইজ আর থাম্ব এক্সটার্নাল রোটেশন ব্যায়ামগুলো করা যেতে পারে। আজ আমরা হ্যামস্ট্রিংয়ের এসএলআর স্ট্রেচ দেখব। পরের সংখ্যায় জানব অন্য স্ট্রেচিংগুলো।

হ্যামস্ট্রিংয়ের এসএলআর

চিত হয়ে শুয়ে এক হাঁটু ভাঁজ করে শূন্যে ধরে রাখতে হবে। এ সময় অন্য পা মাটিতে সোজা থাকবে। এবার ভাঁজ করা পা হাতে ধরে সোজা করার চেষ্টা করতে হবে। অনেকেরই কাছে সোজা করাটা কঠিন মনে হবে। তবে সাধ্যমতো সোজা করার চেষ্টা করতে হবে। মনে মনে ১০ পর্যন্ত গুনুন। দুই পায়েই তিনবার করে অনুশীলন করতে হবে। হ্যামস্ট্রিং পেশি এই স্ট্রেচিংয়ে দীর্ঘায়িত হয়।


মন্তব্য