kalerkantho


শহীদদের স্মরণে মহম্মদপুরে কাঙালিভোজ

মাগুরা প্রতিনিধি   

১৯ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



১৯ নভেম্বর। আজ মাগুরার মহম্মদপুরের আহম্মদ-মহম্মদ শহীদ দিবস।

১৯৭১ সালের এই দিনে পাকিস্তানি সেনাদের সঙ্গে মহম্মদপুরের মুক্তিযোদ্ধাদের ভয়াবহ যুদ্ধ হয়। যুদ্ধে আহম্মদ হোসেন ও মহম্মদ হোসেন নামের দুই সহোদরসহ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের বাঙালি সৈনিক মহম্মদ আলী শহীদ হন।

মহম্মদপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আলী রেজা খোকন জানান, ১৯৭১ সালের অক্টোবর মাসের প্রথম দিকে পাকিস্তানি সেনারা স্থানীয় রাজাকারদের সহায়তায় তৎকালীন টিটিডিসি ভবনে (বর্তমানে উপজেলা পরিষদ) ক্যাম্প স্থাপন করে। পাশাপাশি বিভিন্ন গ্রামে লুটপাটসহ নিরীহ মানুষের ওপর নানা রকম অত্যাচার ও নির্যাতন চালায়। পাকিস্তানি সেনাদের এই ক্যাম্প দখলের লক্ষ্যে আক্রমণের সিদ্ধান্ত নেন মহম্মদপুরের মুক্তিযোদ্ধারা। ১৮ নভেম্বর রাতে উপজেলা সদর থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমে সাত কিলোমিটার দূরে ঝামা বাজারে সমবেত হন তাঁরা। সিদ্ধান্ত হয়, ৫০ জন মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে টিটিডিসি ভবনের দক্ষিণ কোণে থাকবেন কোমল সিদ্দিকী, মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের ও নুর মোস্তফার যৌথ বাহিনীর ৫৫ জন উত্তর দিকে, বীরপ্রতীক গোলাম ইয়াকুব মিয়ার নেতৃত্বে ২০৫ জন মুক্তিযোদ্ধা দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং আহম্মদ হোসেনের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা উত্তর-পূর্ব কোণে অবস্থান নিয়ে রাতের আঁধারেই পাকিস্তানি ক্যাম্পে আক্রমণ করবেন। কিন্তু সড়কের অবস্থা ভালো না থাকায় ঝামা বাজার থেকে মহম্মদপুর আসতেই ভোর হয়ে যায়। পাকিস্তানি সেনা ক্যাম্পে মুক্তিবাহিনী আক্রমণ চালানো মাত্রই ভোরের আলোয় পাকিস্তানি সেনারা খুব সহজে মুক্তিযোদ্ধাদের অবস্থান দেখে ফেলে।

আধুনিক অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পাল্টা আক্রমণ চালিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের পিছু হটতে বাধ্য করে তারা। এ সময় হায়েনাদের একটি গুলি আহম্মদ হোসেনের মাথায় বিদ্ধ হয়। বড় ভাই মহম্মদ হোসেন ছোট ভাই আহম্মদকে বাঁচাতে গিয়ে একইভাবে গুলিবিদ্ধ হন এবং দুই ভাই পরস্পরকে জড়িয়ে ধরে গড়াতে গড়াতে পুকুরের পানিতে পড়ে যান এবং সেখানেই শহীদ হন। এ ঘটনার পরপরই পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে শহীদ হন ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের বাঙালি সৈনিক মহম্মদ আলী। এই তিন শহীদকেই মহম্মদপুরের নাগড়িপাড়া গ্রামে পাশাপাশি দাফন করা হয়।

দিবসটি স্মরণে উপজেলার নাগড়িপাড়া গ্রামে শহীদ আহম্মদ-মহম্মদ পরিবারের পক্ষ থেকে আলোচনাসভা, কোরআনখানি, মিলাদ মাহফিল ও কাঙালিভোজের আয়োজন করা হয়েছে।     


মন্তব্য