kalerkantho


আলোচনাসভায় গয়েশ্বর

রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধান না হলে নানা উপসর্গ দেখা দেবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করতে না পারলে ভবিষ্যতে দেশের ভেতরেই নানা উপসর্গ সৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধান অর্থাৎ তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থাটা আমাদেরই করতে হবে।

নইলে সমস্যাটা বাংলাদেশের জন্য একসময় স্থায়ীকরণ হবে এবং একে কেন্দ্র করে দেশের রাজনীতিতে নানা ধরনের উপসর্গ দেখা দিতে পারে।

বাংলাদেশ ডেমোক্রেটিক কাউন্সিলের উদ্যোগে গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সরকার এবং আন্তর্জাতিক সংস্থা ও নেতৃবৃন্দের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনাসভায় গয়েশ্বর এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, যেসব বৃহৎ শক্তি মিয়ানমারের পেছনে কাজ করছে এবং অস্ত্র ও শক্তি জোগাচ্ছে, তারাই বলপূর্বক রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আনছে। এখানে যে শেষ হবে তা নয়। ওই সব শক্তি একদিন বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের কাছেও আসতে পারে। আর তখন একটা হুমকি তৈরি হবে। কারণ পৃথিবীজুড়ে অস্ত্র ব্যবসায়ীদের কাজটাই হলো নানা পক্ষের মধ্যে ঝগড়া লাগানো। একপক্ষের কাছে করে দৃশ্যমান, আরেক পক্ষের কাছে করে আড়ালে থেকে। আন্তর্জাতিক অনেক সন্ত্রাসী গ্রুপ অথবা অনেক দেশ আছে যারা আমাদের দুর্বল করে রাখতে বিভিন্ন ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী বা আগত রোহিঙ্গাদের মাধ্যমে আগামী দিনে অস্থিতিশীল অবস্থা সৃষ্টি করতে পারে।

বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে দলের নেতাদের বক্তব্যের সমালোচনা করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আমরা বলছি যে ম্যাডাম এলে সহায়ক সরকারের রূপরেখা দেব, আন্দোলন করব, এই সরকারের পতন ঘটাব। কিন্তু তিনি (খালেদা জিয়া) তো আন্দোলন করার চাবি নিয়ে যাননি। কোনো নেতাকর্মীকেও সঙ্গে নিয়ে যাননি। সব কিছুই দেশে রেখে গেছেন। আমরা যদি আন্দোলন করে তার অনুপস্থিতিতে সরকারের পতন ঘটাতে পারি তাহলে তিনি বরং আমাদের ওপর খুশি হবেন। ’


মন্তব্য