kalerkantho


ফুলবাড়ীতে ছাত্রলীগ নেতার হামলায় আহত জেলা পরিষদ সদস্য

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ফুলবাড়ীতে ছাত্রলীগ নেতার হামলায় আহত জেলা পরিষদ সদস্য

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদি হাসানের নেতৃত্বে একটি দলের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন আহম্মদ আলী পোদ্দার রতন। তিনি জেলা পরিষদের সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার ফুলবাড়ী উপজেলা সদরে অর্ধদিবস হরতাল পালিত হয়েছে। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের তিন নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সদর ইউনিয়নের জেলেপাড়ায় নারীসংক্রান্ত বিরোধ মীমাংসা করতে যান জেলা পরিষদ সদস্য আহম্মদ আলী পোদ্দার রতন। উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান তাঁর সাঙ্গোপাঙ্গ নিয়ে সেখানে উপস্থিত হয়ে রতনের সঙ্গে বাগিবতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে মেহেদী তাঁর সঙ্গীদের নিয়ে রতনকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি ও ইট দিয়ে আঘাত করতে থাকেন। এ সময় মাথায় আঘাত পেয়ে গুরুতর আহত হন রতন। পরে স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। পরে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাঁকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ফুলবাড়ী উপজেলা শহরে অর্ধবেলা হরতাল পালিত হয়।

হরতাল শেষে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বক্তব্য দেন সাবেক ছাত্রনেতা ও ইউপি সদস্য আব্দুল লতিফ, প্রভাষক জাকারিয়া মিয়া, অধ্যক্ষ নুর মহাম্মদ প্রমুখ। বক্তারা আগামী ২৪ ঘণ্টায় অপরাধীদের গ্রেপ্তারের আহ্বান জানান। তা না হলে ফুলবাড়ী অচল করে দেওয়ার হুমকি দেন। বর্তমানে পুলিশ যেকোনো সংঘাত এড়াতে উপজেলা শহরের মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় তিন ছাত্রলীগ নেতাকে বহিষ্কার করেছে উপজেলা ছাত্রলীগ। বহিষ্কৃতরা হলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদি হাসান, সদস্য জাহিদ হাসান নয়ন ও মজিদুল হক বাবু। বুধবার বিকেলে উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসে এক জরুরি বৈঠকের সিদ্ধান্ত নেয়  ছাত্রলীগ। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান শেখ, সাংগঠনিক সম্পাদক হারুন অর রশীদসহ দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে কথা হলে মেহেদি হাসান বলেন, ‘আমি আমার বন্ধুর বোনের একটা সমস্যা সমাধানে সেখানে গিয়েছিলাম। কথা-কাটাকাটি হলে আহম্মদ আলী পোদ্দার রতন আমার শার্টের কলার চেপে ধরে। এর পর আমিও ধরি। বিষয়টি আমি শীর্ষ নেতৃত্বকে জানিয়েছি। ’


মন্তব্য