kalerkantho


বাংলাদেশের পথ ধরে নেপালেও গাড়িতে ডিজিটাল নাম্বার প্লেট

নিজস্ব প্রতিবেদক, কাঠমাণ্ডু (নেপাল) থেকে ফিরে   

৩১ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশের যানবাহনে লেগেছে ডিজিটাল নাম্বার প্লেট। নিরাপত্তা, গাড়ি চুরি ঠেকানো, সরকারের কর সংগ্রহে সহায়ক হয়েছে এ ব্যবস্থা। বাংলাদেশকে অনুসরণ করে প্রতিবেশী নেপাল এখন ২৫ লাখ যানবাহনে ডিজিটাল নাম্বার প্লেট বসাচ্ছে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা। দেশটির ভৌত অবকাঠামো ও পরিবহন মন্ত্রণালয় এ উদ্যোগ নিয়েছে।

বাংলাদেশের তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান টাইগার আইটি বাংলাদেশ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। আর একে কারিগরি সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠান। এরই মধ্যে নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুতে নির্মাণ করা হয়েছে ডিজিটাল নাম্বার প্লেট তৈরির আধুনিক কারখানা।

টাইগার আইটির সহকারী মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয় ও বিপণন) রাজিব চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, দেশে-বিদেশে ভোটার নিবন্ধন ব্যবস্থা, অভিবাসনপ্রক্রিয়ায় তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার, যানবাহনের ডিজিটাল নাম্বার প্লেট, নিবন্ধন কার্ড ও ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরির প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে টাইগার আইটি। মলদোভা, তাজিকিস্তান, কেনিয়া, ভারত, ভুটানসহ কয়েকটি দেশে সফলভাবে কাজ করেছে প্রতিষ্ঠানটি। তিনি বলেন, ‘সাফল্যের স্বীকৃতিতে নতুন পালক হচ্ছে নেপাল। আমরা দেশটিতে মেশিন রিডেবল পাসপোর্টও তৈরি করছি।’

টাইগার আইটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গৌতম ভট্টাচার্য কালের কণ্ঠকে বলেন, নেপালে ডিজিটাল নাম্বার প্লেট প্রকল্পে আলাদা তথ্যভাণ্ডার থাকবে। থাকবে রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন (আরএফআইডি) স্টিকার। গাড়ি চুরি হলে বা অপরাধমূলক কাজে ব্যবহার হলে দ্রুত তা চিহ্নিত করা যাবে। গাড়ি চুরি করে নাম্বার প্লেট খুলে ফেলা হলেও অপরাধীকে ধরতে পারবে পুলিশ।

এ প্রকল্পের কাজ পেতে ভারত ও জার্মানিসহ ছয় দেশের সাতটি প্রতিষ্ঠান দরপত্রে অংশ নেয়। কিন্তু বাংলাদেশের টাইগার আইটিকে কাজ দেয় নেপাল সরকার। এর সঙ্গে সহযোগী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয় যুক্তরাষ্ট্রের ডেকাটোর নামের প্রতিষ্ঠানকে।

বাংলাদেশে আছে প্রায় ৩০ লাখ যানবাহন। নেপালে আছে প্রায় ২৫ লাখ। এর বেশির ভাগই মোটরসাইকেল। কাঠমাণ্ডুর পথে পথে বাস আছে হাতে গোনা। 

নেপালের ভৌত অবকাঠামো ও পরিবহন মন্ত্রণালয়ের অধীনে যানবাহন ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের (ডিওটিএম) কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সেখানে নাম্বার প্লেট বসানো হবে যানবাহনের সামনে ও পেছনে। গত ২১ আগস্ট দেশটির ভৌত অবকাঠামো ও পরিবহন মন্ত্রী বীর বাহাদুর বালায়ার কাঠমাণ্ডু নগরীর ডিওটিএম কার্যালয় প্রাঙ্গণে ডিজিটাল নাম্বার প্লেট প্রকল্প আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। প্রকল্পের জন্য স্থাপিত কারখানা ও অনুষ্ঠান দেখতে আগের দিন বাংলাদেশ থেকে সাংবাদিকদের একটি দল সেখানে উপস্থিত হয়।

একদিকে বন্যা, অন্যদিকে রাজনৈতিক অস্থিরতা চলছে নেপালে। গত ১৫ আগস্ট এ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের দিন ঠিক করা হয়েছিল। তবে বন্যার কারণে তা পিছিয়ে দেওয়া হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পরিবহনমন্ত্রী বীর বাহাদুর বালায়ার এই প্রকল্পকে নেপালের এগিয়ে যাওয়ার মাইলফলক হিসেবে মন্তব্য করেন। কাঠমাণ্ডুর ডিওটিএম ভবনে গিয়ে দেখা যায়, কয়েকটি কক্ষে নাম্বার প্লেট তৈরির কাজ চলছে।



মন্তব্য