kalerkantho


বঙ্গবন্ধু সেতু রক্ষা গাইড বাঁধে ধস

ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

৩১ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



বঙ্গবন্ধু সেতু রক্ষা গাইড বাঁধে ধস

বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বাংশে কালিহাতী উপজেলার গড়িলাবাড়ীতে সেতু রক্ষা গাইড বাঁধে গতকাল বুধবার ভোর থেকে ধস দেখা দিয়েছে। ধস ঠেকাতে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ (বিবিএ) কাজ করে যাচ্ছে। সেতুর খুব কাছ থেকে যমুনা নদীতে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারণে এই ধস দেখা দিয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

সরেজমিনে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড়ের দক্ষিণে ধসকবলিত গড়িলাবাড়ীতে গিয়ে দেখা যায়, গতকাল ভোরে শুরু হওয়া ধসে সেতু রক্ষা বাঁধের ২০০ মিটার নদীগর্ভে চলে গেছে। সেই সঙ্গে গড়িলাবাড়ী, বিনোদ লুহুরিয়াসহ কয়েকটি গ্রামের কমপক্ষে অর্ধশত ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। বাঁধে ধসের খবর শুনেই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন কালিহাতী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোজহারুল ইসলাম তালুকদার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু নাসার উদ্দিন। ধস অব্যাহত থাকায় হুমকির মধ্যে রয়েছে দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা বঙ্গবন্ধু সেতু।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুুক একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, বঙ্গবন্ধু সেতুর খুব কাছ থেকে যমুনা নদীতে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদারসহ স্থানীয় প্রভাবশালীরা। আর সে কারণেই শুরু হয়েছে তীব্র ভাঙন। ধস ও ভাঙনরোধে বঙ্গবন্ধু সেতুর সাইট অফিসের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি বলেও অভিযোগ তাঁদের।

ভাঙনের শিকার গড়িলাবাড়ী গ্রামের হাফিজুর রহমান বলেন, ‘আজ (বুধবার) ভোর থেকে ভাঙনে আমাদের এলাকার চান মিয়া শিকদার, আবুল হোসেন দোকানদার, কোরবান আলী, বক্কার আলী, আবুল হোসেন মণ্ডল, আকবর আলী, আব্দুল হাই, শাহাদত হোসেনসহ অনেকের বাড়িঘর নদীগর্ভে চলে গেছে। আমরা ঘরবাড়ি সরানোর সময়টুকু পাই নাই। সবকিছু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছি।’

বঙ্গবন্ধু সেতুর সাইট অফিসে কর্মরত সহকারী প্রকৌশলী ওয়াসিম আলী জানান, ধস ঠেকাতে নদীর ওই অংশে জিও ব্যাগ নিক্ষেপ অব্যাহত রয়েছে।



মন্তব্য