kalerkantho


এরশাদ বললেন

’৮৮ সালের বন্যায় কেউ না খেয়ে মরেনি, এখন ত্রাণের জন্য হাহাকার চলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, ৮৮-র বন্যায় কেউ না খেয়ে মারা যায়নি, আর এখন ত্রাণের জন্য হাহাকার চলছে। বর্তমানে দেশে আইনের শাসন নেই দাবি করে তিনি বলেন, একমাত্র জাতীয় পার্টিই পারে দেশকে এই অবস্থা থেকে মুক্তি দিতে। গতকাল সোমবার রাজধানীর বনানীতে জাপা চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে জাতীয় ওলামা পার্টি ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এরশাদ এ কথা বলেন।

এরশাদ বলেন, ‘আজ আমাদের সন্ত্রাসী বলা হয়, জঙ্গি বলা হয়। এর কারণ, দেশের ইসলামী দলগুলোর মধ্যে একতা নেই। আমাদের একত্রিত হতে হবে। সামনে বিরাট পরীক্ষা, ভয়ংকর বিপদ। যদি বাঁচতে হয়, সবাইকে এক হতে হবে। উদ্দেশ্য একটাই, ইসলাম, কৃষ্টি এবং দেশ রক্ষা করা।’

আলোচনাসভায় জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, এস এম ফয়সাল চিশতী, সুনীল শুভরায়, জাতীয় ওলামা পার্টির নেতা মো. হাবিবুল্লাহ বেলালী উপস্থিত ছিলেন।

এরশাদ বলেন, ‘সরকার প্রচার করছে দেশ নাকি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। মাথাপিছু গড় আয় নাকি ১৬ শ ডলার। তাহলে সরকারের কাছে আমার প্রশ্ন, জীবিকার জন্য দেশের মানুষ কেন বিদেশে ছুটছে।’ বন্যায় সারা দেশের মানুষের দুর্দশার কথা তুলে ধরে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামের তীব্র সমালোচনা করেন এরশাদ। তিনি বলেন, ‘খাদ্যমন্ত্রী বলছে দেশে খাদ্যের অভাব নেই। অথচ খাদ্যগুদাম খালি। বন্যার্ত মানুষকে সরকার ত্রাণ দিতে পারছে না। মানুষ মানবেতর জীবন যাপন করছে। খাদ্যমন্ত্রী বিদেশ থেকে পচা গম আমদানি করেছিলেন।  কিন্তু তার বিচার হলো না। এখন তিনি বড় বড় বথা বলছেন।’



মন্তব্য