kalerkantho


বিশ্বজিৎ হত্যা মামলা

হাইকোর্টে রায় ৬ আগস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০



হাইকোর্টে রায় ৬ আগস্ট

আলোচিত পুরান ঢাকার দর্জি দোকানি বিশ্বজিৎ দাস হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানি শেষে হাইকোর্ট আগামী ৬ আগস্ট রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য করেছেন।

গতকাল সোমবার বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর হাইকোর্ট বেঞ্চ উভয় পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষ হওয়ার পর রায়ের ওই দিন ধার্য করেন।

২০১৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর আলোচিত এ মামলার রায়ে আটজনকে মৃত্যুদণ্ড ও ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন ঢাকার একটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল। ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আসামিদের করা আপিল এবং নিম্ন আদালত থেকে পাঠানো ডেথ রেফারেন্সের শুনানি গত ১৬ মে শুরু হয়। গতকাল পর্যন্ত মোট ১৫ কার্যদিবস শুনানি হয়। প্রধান বিচারপতির নির্দেশে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এ মামলার পেপারবুক তৈরির পর শুনানির জন্য বেঞ্চ গঠন করা হয়। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নজিবুর রহমান। আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মনসুরুল হক চৌধুরী, এস এম শাহজাহান, লুত্ফর রহমান মণ্ডল, সৈয়দ আলী মোকাররম, সৈয়দ শাহ আলম, মো. আব্দুস সালাম, মো. ইসা ও সৈয়দ মাহমুদুল আহসান। পলাতক আসামিদের পক্ষে ছিলেন রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী মোমতাজ বেগম।  

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন রফিকুল ইসলাম শাকিল, মাহফুজুর রহমান নাহিদ, এমদাদুল হক এমদাদ, জি এম রাশেদুজ্জামান শাওন, সাইফুল ইসলাম, কাইয়ুম মিঞা টিপু, রাজন তালুকদার ও মীর মো. নূরে আলম লিমন। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন এ এইচ এম কিবরিয়া, ইউনুস আলী, তারিক বিন জোহর তমাল, গোলাম মোস্তফা, আলাউদ্দিন, ওবায়দুর কাদের তাহসিন, ইমরান হোসেন, আজিজুর রহমান, আল আমিন, রফিকুল ইসলাম, মনিরুল হক পাভেল, মোশাররফ হোসেন ও কামরুল হাসান।

এ ছাড়া তাঁদের প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড করা হয়।


মন্তব্য