kalerkantho


ডিএসসিসির সিবিএ কমিটি বাতিল

তোফাজ্জল হোসেন রুবেল   

২১ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০



ডিএসসিসির সিবিএ কমিটি বাতিল

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) পরিবহন চালক ও শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের নবগঠিত কার্যনির্বাহী কমিটি বাতিল করেছে শ্রম দপ্তর। গত ১৬ এপ্রিল শ্রম অধিদপ্তরের উপপরিচালক স্বাক্ষরিত অবহিতকরণপত্রের মাধ্যমে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও সচিবকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

এই সিদ্ধান্তের ফলে ডিএসসিসির এই বৃহৎ শ্রমিক সংগঠনের এই মুহূর্তে কোনো বৈধ কার্যকরী কমিটি থাকছে না।

এদিকে এই অবৈধ কমিটির কার্যক্রম থেকে ডিএসসিসি কর্তৃপক্ষকে বিরত থাকার জন্য চালকদের অন্য সংগঠনের একটি পক্ষ গত ১৭ এপ্রিল মেয়র বরাবরে একটি আবেদন করে। তবে বাতিল ঘোষিত কমিটির নেতাদের দাবি, নিয়ম মেনেই কমিটি গঠন হয়েছে। আর এই কমিটি বাতিল ঘোষণার এখতিয়ার শ্রম দপ্তরের নেই।

ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত সচিব) খান মোহাম্মদ বিলাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা শ্রম দপ্তরের কাছ থেকে চিঠি পেয়েছি। সেখানে শ্রমিক সংগঠনের কমিটি যথাযথ নিয়মে হয়নি উল্লেখ করে তা বাতিলের কথা বলা হয়েছে। ’

অবহিতকরণপত্রে বলা হয়, ‘শ্রম দপ্তর থেকে গত ২৭ মার্চ একটি চিঠির মাধ্যমে বিদ্যমান গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন গঠন, বাংলাদেশ শ্রম বিধিমালা-২০১৫-এর বিধি ১৬৯(১) কার্যকর কমিটির কলেবর নির্ধারণসহ হালনাগাদ সদস্য প্রস্তুত করতে বলা হয়। এ ছাড়া বাংলাদেশ শ্রম আইন-২০০৬-এর ৩১৭(৪)(ঘ) ধারা মোতাবেক নির্বাচনের সব পর্যায়ে যুগ্ম শ্রম পরিচালক অথবা দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার উপস্থিতিতে এবং মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে দায়ের করা রিট পিটিশন নং ৭৩৭২/২০১১ এবং ৪৩১৬/২০১৪ নির্দেশনা মোতাবেক সবার অংশগ্রহণে বহুল প্রচারের মাধ্যমে নির্বাচনী কার্যক্রম সম্পন্ন করার কথা বলা হয়। কিন্তু মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি কর্তৃক শ্রম আইন, বিধি ও হাইকোর্টের নির্দেশনা প্রতিপালন না করে এবং অত্র দপ্তরের সম্পৃক্ততা ব্যতিরেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখিয়ে নির্বাচনী ফল দাখিল করা হয়েছে।

আইন, বিধি ও হাইকোর্টের নির্দেশ প্রতিপালন না করায় দাখিল করা নির্বাচনী ফল গ্রহণ করা হলো না। ’ একই পত্রের মাধ্যমে শ্রম দপ্তর কর্তৃপক্ষ গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্বাচন দিতে বিলুপ্ত কমিটিকে নির্দেশ দিয়েছে।

জানা যায়, চালক ও শ্রমিকদের গঠন করা ইউনিয়নকে ঘিরে ডিএসসিসিতে বিশাল সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। যখন যারা এর নেতৃত্বে যান তাঁরাই ইউনিয়নের নাম ভাঙিয়ে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে যান। তাই চতুর্থ শ্রেণির এই সংগঠনের নেতা হতে অনেকেই মরিয়া হয়ে ওঠেন।

সূত্র জানায়, গত ১৪ এপ্রিল ডিএসসিসির পরিবহন চালক ও শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়ন নির্বাচনের মাধ্যমে আক্তার হোসেন দেওয়ান সভাপতি ও শাহ আলম (শাহীন) সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন মর্মে শ্রম দপ্তরে একটি কমিটি জমা দেয়। ‘একতা পরিষদ’-এর ব্যানারে তারা ২৫টি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতার কথা উল্লেখ করে। কিন্তু অন্য পক্ষ ‘ঐক্য পরিষদ’কে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগও দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ ওঠে। এরপর শ্রম দপ্তর আক্তার দেওয়ান ও শাহ আলমের কমিটি বাতিল করে চিঠি জারি করে।

ঐক্য পরিষদের সভাপতি বেলায়েত হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নিয়ম অনুযায়ী দুই বছর পর পর আমাদের নির্বাচন হয়। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব তৈরি হয়। কিন্তু একটি পক্ষ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা বা নির্বাচন কমিশন গঠন না করে রাতের আঁধারে একটি কমিটি করে শ্রম দপ্তরে জমা দিয়েছে। ’


মন্তব্য