kalerkantho


বিএমডিসির নিবন্ধন

১০ কোটি টাকা দণ্ড, নিয়ম মানার শর্ত ইউএসটিসিকে

নূপুর দেব, চট্টগ্রাম   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



অবশেষে বেসরকারি ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, চট্টগ্রাম (ইউএসটিসি) নিয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় কঠোর অবস্থানে গেছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের অধীনে এমবিবিএস (ব্যাচেলর অব মেডিসিন, ব্যাচেলর অব সার্জারি) কোর্সে পাঁচটি ব্যাচে অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তির অনিয়মের দায়ে প্রতিষ্ঠানটিকে ১০ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জরিমানার টাকা এক মাসের মধ্যে সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে মন্ত্রণালয়কে জানাতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা নীতিমালা-২০১১ (সংশোধিত)-এর সব বিধিবিধান, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও বিএমডিসির শর্তসমূহ প্রতিপালন করবে মর্মে মুচলেকা মন্ত্রণালয়ে জমা দিতে হবে। তবেই চিকিৎসা অনুষদের পাঁচটি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) নিবন্ধন দেওয়া হবে। এর ব্যত্যয় হলে প্রতিষ্ঠানটির সব কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হবে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এসংক্রান্ত একটি আদেশ গতকাল সোমবার ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষ পেয়েছে। গত ২২ ফেব্রুয়ারি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব বদরুননাহার স্বাক্ষরিত এই আদেশ ইউএসটিসির উপাচার্য বরাবর পাঠানো হয়েছিল।

ওই আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে, জরিমানার টাকা জমা দেওয়ার পর এবং নীতিমালাসহ মন্ত্রণালয় ও বিএমডিসির শর্তগুলো প্রতিপালিত হলে মন্ত্রণালয় ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষে ৪১০ জন, ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষে ৪১৪ জন, ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষে ২৮০ জন, ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে ৯০ জন, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ১৫০ জন শিক্ষার্থীকে ভর্তির ভূতাপেক্ষ অনুমোদনের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

মন্ত্রণালয়ের এই আদেশ গতকাল ইউএসটিসিতে গেলেও আন্দোলন থেকে এখনো সরেনি বিএমডিসির নিবন্ধন না পাওয়া শিক্ষার্থীরা। দ্বিতীয় দফায় গত ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউএসটিসি পরিচালনাধীন বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল হাসপাতালের ইনডোর, আউটডোর ও জরুরি বিভাগে রোগী ভর্তি বন্ধ আছে।

৩৫০ শয্যার এ হাসপাতালে গতকাল সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত ইনডোরে মাত্র দুজন রোগী ভর্তি ছিল।

জানা যায়, গত ৯ ফেব্রুয়ারি মন্ত্রণালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় ইউএসটিসির সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনা এবং অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে অনিয়মের দায়ে প্রতিষ্ঠানটিকে ১০ কোটি টাকা জরিমানা করার সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া ওই সভায় নেওয়া বিভিন্ন সিদ্ধান্তসংবলিত মন্ত্রণালয়ের আদেশ গত ২২ ফেব্রুয়ারি ইস্যু হয়েছে।

এ ব্যাপারে ইউএসটিসির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. নুরুল আবসার গতকাল সন্ধ্যায় কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মন্ত্রণালয় থেকে আমরা একটি চিঠি পেয়েছি। গত ২২ তারিখের এই চিঠি রবিবার রাতে পাওয়ার পর তা নিয়ে সোমবার আমরা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের নিয়ে বৈঠক করেছি। তাদেরকে বলা হয়েছে হাসপাতাল খুলে দেওয়ার জন্য। কিন্তু এখনো খুলেছে কি না তা জানি না। ’

এক প্রশ্নের জবাবে উপ-উপাচার্য বলেন, ‘২৫ থেকে ২৯তম পাঁচটি ব্যাচে ভর্তিতে অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করায় এ অনিয়মের কারণে ১০ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ টাকা জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। ’


মন্তব্য