kalerkantho


কার কোলে যাবে শিশু একুশ?

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



কার কোলে যাবে শিশু একুশ?

চট্টগ্রামে আবর্জনার স্তূপ থেকে জীবিত উদ্ধার হওয়া শিশু একুশ কার কোলে যাবে? তাকে দত্তক পাওয়ার জন্য চট্টগ্রামের আদালতে ইতিমধ্যে ৯টি আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে রয়েছেন স্কুল শিক্ষক, চিকিৎসক, আইনজীবী ও সরকারি কর্মকর্তা।

এর বাইরেও রয়েছে শিশুমনি নিবাস। সাধারণত কোনো শিশুর ওয়ারিশ না পেলে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ওই শিশুকে শিশুমনি নিবাসে লালন-পালন করা হয়। নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানার রউফাবাদ এলাকায় রয়েছে এই সংস্থা।

আকবর শাহ থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর মাহমুদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে জীবিত উদ্ধারের পর থেকে শিশুটি চিকিৎসাধীন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে নিবিড় পরিচর্যা করে সুস্থ করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। ইতিমধ্যে শিশুটি অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেছে। ’

শিশু একুশকে দত্তক পাওয়ার জন্য আদালতে ৯টি আবেদন জমা পড়ার কথা উল্লেখ করে আলমগীর মাহমুদ বলেন, ‘আদালত আবেদনগুলো নথিতে রেখেছেন। পরে আদেশ দিতে পারেন। আদালত চাইলে শিশুটিকে দত্তক দেওয়ার সিদ্ধান্তও দিতে পারেন।

আবার সরকারিভাবে শিশুমনি নিবাসে রাখার আদেশও দিতে পারেন। এটা সম্পূর্ণ আদালতের এখতিয়ার। ’

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি এম এ ফয়েজ সাংবাদিকদের জানান, চট্টগ্রামের শিশু আদালতের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রথম অতিরিক্ত চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ জান্নাতুল ফেরদৌসের আদালতে ৯টি আবেদন জমা পড়েছে। দত্তক পাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে স্কুল শিক্ষক, চিকিৎসক, আইনজীবী ও সরকারি কর্মকর্তা রয়েছেন। তাঁদের কেউ নিঃসন্তান অথবা কারো পুত্রসন্তান নেই। আদালত পরবর্তী শুনানির তারিখে হয়তো এসংক্রান্ত আদেশ দিতে পারেন। ওসি আলমগীর মাহমুদ জানান, শিশু একুশের সুস্থতার বিষয়ে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করবে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তার সুস্থতার প্রতিবেদন পাওয়ার পরই আদালতের সিদ্ধান্ত দেওয়ার সম্ভাবনা আছে।


মন্তব্য