kalerkantho


শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠানে সেলিম

হত্যা-নির্যাতন করে আদর্শের লড়াই বন্ধ করা যায় না

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, কমিউনিস্ট পার্টির অগ্রযাত্রা থামাতেই পল্টনে মহাসমাবেশে বোমা হামলা চালিয়ে নির্মমভাবে পাঁচজনকে হত্যা করা হয়েছিল। এসব মানুষ শোষণমুক্ত-শ্রেণিহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছিল। ওই বোমা হামলায় কমরেড হিমাংশুর জীবন কেড়ে নিলেও তাঁর হাত থেকে লাল পতাকা ছিনিয়ে নিতে পারেনি। হত্যা-নির্যাতন করে আদর্শের লড়াই বন্ধ করা যাবে না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

গতকাল শুক্রবার পুরানা পল্টনে মুক্তি ভবনের সামনে পল্টন হত্যাকাণ্ডের শহীদদের স্মরণে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সেলিম এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, শ্রমিক ও মেহনতি মানুষের মুক্তির সংগ্রামে প্রাণ উৎসর্গ করা শহীদদের দেখানো পথে গার্মেন্ট শ্রমিক, হকারসহ দেশের শ্রমজীবী মানুষের লড়াই-সংগ্রামে কমিউনিস্টদের ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। এই সংগ্রামকে শ্রমিক শ্রেণির রাজনৈতিক লড়াইয়ে যুক্ত করতে হবে।

সমাবেশে পার্টির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ বলেন, পল্টন হত্যাকাণ্ডের বিচারপ্রক্রিয়া দীর্ঘসূত্রতার মধ্যে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডে দ্রুত বিচার নিশ্চিত করতে হবে।

এদিকে গতকাল সকালে পুরানা পল্টনে পার্টি অফিসের সামনে অস্থায়ী বেদিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠন পুষ্পমাল্য অর্পণ করে। বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, বাংলাদেশ কৃষক সমিতি, বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতি, গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন, প্রগতি লেখক সংঘ, বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন, প্রাইভেট কার ড্রাইভার্স ইউনিয়ন, রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন, সাপ্তাহিক একতা, সিপিবি-নারী সেল, গার্মেন্ট শ্রমিক ফ্রন্ট, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, সিপিবির বিভিন্ন শাখা ও থানা কমিটিসহ বিভিন্ন সংগঠন ও সংস্থা পুষ্পমাল্য অর্পণ করে।



মন্তব্য