kalerkantho


কলকাতায় বাণিজ্যমন্ত্রী আমু

বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে ভারতীয়দের জন্য বিশেষায়িত শিল্পাঞ্চল বরাদ্দ করা হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক, কলকাতা   

২১ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে ভারতের বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষায়িত শিল্পাঞ্চল বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব করেছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। গতকাল শুক্রবার কলকাতায় বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি দুই দেশের বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে এ ধরনের শিল্প সম্মেলনকে প্ল্যাটফর্ম হিসেবে ব্যবহারেরও আহ্বান জানিয়েছেন।

ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় গতকাল সকালে প্রদীপ জ্বালিয়ে এই তৃতীয় শিল্প-বাণিজ্য সম্মেলন উদ্বোধন করেন। এ সময় পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যপাল কেশরী নাথ ত্রিপাঠি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, পশ্চিমবঙ্গের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উদ্যোগে আয়োজিত এই সম্মেলনে বাংলাদেশের শিল্পমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে শিল্পায়নের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে। দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হচ্ছে। ভারতের উদ্যোক্তারা চাইলে এর একটি তাদের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হবে। বাংলাদেশে বর্তমানে যে স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিরাজমান তাতে ভারতীয় শিল্পোদ্যোক্তারা এখনে নিশ্চিন্তে বিনিয়োগ করতে পারে।

আমির হোসেন আমু আরো বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ সাড়ে পাঁচ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি। এই বাণিজ্য ভারতের অনুকূলে রয়েছে। এই তৃতীয় বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট সেই বৈষম্য দূর করতে গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম হতে পারে।’

বাণিজ্য সম্মেলনে বাংলাদেশ, ব্রিটেন, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, জাপান, ইতালি, পোল্যান্ডসহ ২৯ দেশের সাড়ে পাঁচ হাজার প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছেন। কলকাতার বাইপাস-সংলগ্ন মিলনমেলা গ্রাউন্ডে শুরু হওয়া এই সম্মেলন চলবে আজ শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি বিজেপির শীর্ষ পর্যায়ের এই নেতাকে। অবশ্য গত বছরের সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী ছাড়াও কেন্দ্রীয় চার প্রতিমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। রুপির নোট বাতিল ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আন্দোলনে সরকারের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হওয়ায় এটা কেন্দ্রের এক ধরনের প্রতিক্রিয়া বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

প্রণব মুখোপাধ্যায় উদ্বোধনী ভাষণে বলেন, পশ্চিমবঙ্গের উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাওয়া দেখে সত্যিই ভালো লাগছে। মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেই ২০১১ সাল থেকে চেষ্টা করে যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের জাতীয় প্রবৃদ্ধির হারও ভারতের অন্য রাজ্যগুলোর চেয়ে ভালো, ৭ দশমিক ৪ পয়েন্ট। এ ধরনের সফল বাণিজ্য সম্মেলন করে বিদেশি বিনিয়োগের আহ্বান জানানোর জন্য তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর বক্তব্যে দেশি-বিদেশি শিল্প প্রতিনিধিদের প্রতি পশ্চিমবঙ্গে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘নর্থ ইস্ট ভারতের সাতটি রাজ্যের বাজার যেমন পাবেন, তেমনি পশ্চিমবঙ্গে তথা কলকাতায় ব্যবসা করলে আপনারা সীমান্তবর্তী বাংলাদেশ, নেপাল ও ভুটানের বাজার পাবেন। এমনকি চীন এবং থাইল্যান্ডের বাজারও ধরতে পারবেন।’



মন্তব্য