kalerkantho


দিরাইয়ে তিন খুন

দুই মামলায় কেউ গ্রেপ্তার হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক ও সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

২১ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় জারুলিয়া জলমহাল দখল নিয়ে সংঘর্ষে তিনজন নিহত হওয়ার ঘটনায় দুই পক্ষই মামলা করেছে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে দিরাই থানায় দুটি মামলা হয়েছে।

এক পক্ষের দায়ের করা হত্যা মামলায় দিরাই উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ৩৯ জনকে আসামি করা হয়েছে। আরেক পক্ষ ২৯ জনের বিরুদ্ধে জলমহাল লুটপাটের অভিযোগ এনেছে। তবে এখনো কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।

এদিকে জলমহাল দখল নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় স্থানীয় যুবলীগকে জড়িয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের নিন্দা জানিয়েছেন সংগঠনটির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ।

মামলা : উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য একরার হোসেন তাঁর পক্ষের তিনজনের প্রাণহানির ঘটনায় হত্যা মামলা করেছেন। এ মামলার আসামিদের মধ্যে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান তালুকদার, আওয়ামী লীগ নেতা ও পৌর মেয়র মোশারফ মিয়া, দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়।

জলমহাল দখল নিয়ে প্রতিবেদন করায় একরার হোসেন দিরাই উপজেলা প্রেস ক্লাবের সদস্যসচিব দৈনিক যুগান্তরের প্রতিনিধি জিয়াউর রহমানকেও আসামি করেছেন।

অন্যদিকে জারুলিয়া জলমহালের ইজারাদার ধনঞ্জয় দাস লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ও হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় একরার হোসেনকে প্রধান আসামি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৭ জানুয়ারি জারুলিয়া জলমহালের দখল নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে। গুলিতে নিহত হন একরার হোসেন পক্ষের তাজুল ইসলাম, সাহারুল ও উজ্বল নামের তিনজন।

দিরাই থানার ওসি মো. আব্দুল জলিল দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি মামলা দায়েরের ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানান, আসামিদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।



মন্তব্য