kalerkantho


পারিবারিক বিরোধে আত্মগোপনে ছিলেন অভিনেতা বৈরাগী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



পারিবারিক বিরোধে আত্মগোপনে ছিলেন অভিনেতা বৈরাগী

অভিনেতা ফখরুল হাসান বৈরাগী নিখোঁজ হননি। পারিবারিক বিরোধের কারণে তিনি কেরানীগঞ্জে ছেলের বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন। ‘উধাও’ হওয়ার ৪১ দিন পর গতকাল সোমবার বিকেলে রাজধানীর কলাবাগান থানায় হাজির হয়ে পুলিশকে এসব কথা বলেছেন তিনি। পরে তিনি আবারও ছেলের বাসায়ই ফিরে গেছেন। কলাবাগান থানার ওসি ইয়াসির আরাফাত কালের কণ্ঠকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

থানায় যাওয়ার আগে গতকাল দুপুরে ফখরুল হাসান বৈরাগী ঢাকা মহানগর পুলিশের মিন্টো রোডের জনসংযোগ দপ্তরে যান। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের জানান, স্ত্রী মারা যাওয়ার পর তিনি আর বিয়ে করেননি। তিনি কলাবাগান থানা এলাকার নিজ বাসায় থাকতেন। একপর্যায়ে রাজিয়া হাসান নামের এক নারীর সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। তাঁরা একে অন্যের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। তবে রাজিয়াকে তিনি বিয়ে করেননি।

একপর্যায়ে রাজিয়া ব্ল্যাকমেইল করে নিজেকে তাঁর স্ত্রী দাবি করলে পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। এ কারণে তিনি নিজে থেকেই কেরানীগঞ্জে ছেলেদের সঙ্গে থাকতে শুরু করেন। আর রাজিয়া তাঁকে স্বামী পরিচয় দিয়ে গণমাধ্যম ও পুলিশের কাছে নিখোঁজ হওয়ার যে দাবি করেছেন তা সঠিক নয়।

তবে রাজিয়া হাসান কালের কণ্ঠের কাছে দাবি করে বলেন, ‘ফখরুল হাসান বৈরাগী আমার স্বামী। অনেক দিন আগেই আমাদের বিয়ে হয়েছে। আমাদের দুটি সন্তানও (এক ছেলে ও এক মেয়ে) রয়েছে। স্বামী ফিরে আসায় আমি আনন্দিত। কলাবাগান থানায় গিয়ে স্বামীর সঙ্গে দেখা করেছি। আর এখন আমি জানলাম যে আমার স্বামী নিজে থেকেই আত্মগোপনে ছিলেন। ’

প্রসঙ্গত, অভিনেতা বৈরাগী ৪১ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন বলে দাবি করে আসছিলেন তাঁর স্ত্রী দাবিদার রাজিয়া। পারিবারিক সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের কারণে বৈরাগী নিখোঁজ হয়েছেন বলে সাংবাদিকদের কাছে তিনি আশঙ্কাও প্রকাশ করেছিলেন।


মন্তব্য