kalerkantho


সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও নির্মূল কমিটির প্রতিবাদ

জামায়াত নেতার নামে সড়ক নামকরণের ঘোষণা কক্সবাজারের সাংসদের

২৪ ঘণ্টার মধ্যে বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ নভেম্বর, ২০১৮ ২০:২৪



জামায়াত নেতার নামে সড়ক নামকরণের ঘোষণা কক্সবাজারের সাংসদের

কক্সবাজারের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য সাইমুন সারোয়ার কমল কক্সবাজার জেলা জামায়াতের প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক জি,ম রহিমউল্লাহর নামে সড়ক নামকরণের ঘোষণা দেওয়ায় বিস্ময় প্রকাশ ও প্রতিবাদ জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও ৭১ এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। আজ বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো যৌথ বিবৃতিতে ওই জামায়াত নেতাকে সহিংসতা ও কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের দায়ে অভিযুক্ত করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সংসদ সদস্যের বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়েছে। 

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত বুধবার কক্সবাজার জেলা জামায়াত ইসলাম এর সাধারণ সম্পাদক জি,ম রহিমউল্লাহর জানাযায় উপস্থিত হয়ে কক্সবাজার সংসদীয় আসন-৩-এর সাংসদ যে বক্ত্যব প্রদান করেছেন তা ইতোমধ্যে গণমাধ্যম ও সামাজিক  যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে, যা আমাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে এবং একই সঙ্গে উদ্বিগ্ন ও বিক্ষুব্ধ করেছে । জানাযায় উপস্থিত হয়ে সাংসদ সাইমুন সারোয়ার কমল প্রতিশ্রুতি দেন যে এই জামায়াত নেতার নামে তিনি একটি সড়কের নামকরণ করবেন এবং তার পরিবারকে একটি জায়গা বরাদ্দ দেবেন।

নিহত কক্সবাজার জামায়াত সাধারণ সম্পাদক জি,এম, রহিমউল্লাহ যুদ্ধাপরাধী সাঈদীর রায় ঘোষণার পর কক্সবাজারে তাণ্ডব ও সহিংসতা চালায়। ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন প্রতিহত করতে প্রকাশ্যে হামলা ও আক্রমণ পরিচালনা করে এবং চারজন মানুষকে হত্যা করে। এ বিষয়ে তার বিরুদ্ধে দুটি মামলা রয়েছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক ওই নেতা ১৯৯৮ সালের ১৭ আগস্ট সংগঠিত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রনেতা সঞ্জয় তলাপাত্র হত্যাকাণ্ডের অন্যতম আসামী। 

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রাম ও অসংখ্য মানুষের প্রাণের বিনিময়ে যুদ্ধাপরাধী ও স্বাধীনতা বিরোধীদের বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো সম্ভব হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ়তা ও দেশপ্রেম এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সামাজিক-সাংস্কৃতিক-রাজনৈতিক শক্তিসমূহের ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামের ফলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া সুসম্পন্ন হচ্ছে। এবারের নির্বাচনে যেকোন মূল্যে জামায়াত ও যুদ্ধাপরাধীদের প্রতিহত করতে আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শহীদের স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়তে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ‘যেখানে জামায়াত, সেখানেই প্রতিরোধ’ এই অঙ্গীকারে ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান জানাচ্ছি। 



মন্তব্য