kalerkantho


‘ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগের কাছে কোনো ষড়যন্ত্রই টিকবে না’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৮ ২০:২৯



‘ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগের কাছে কোনো ষড়যন্ত্রই টিকবে না’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধ থাকলে আওয়ামী লীগকে পরাজিত করার মতো কোনো শক্তি দেশে নেই।

তিনি বলেন, ‘হাটু ভাঙ্গা দল বিএনপির সঙ্গে জোট করেছে কোমর ভাঙ্গা দলের বুড়ো নেতারা। এই ঐক্য দেশের মানুষ বিশ্বাস করে না। তারা ডাক দিলে জনগণ আসবে না।’

কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে ৭০ দল ঐক্য করলেও বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন আওয়ামী লীগের বিজয় কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না।

ওবায়দুল কাদের আজ বিকেলে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা মোড়ে আগামী জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষ্যে দলের জনসংযোগ কর্মসূচির লিফলেট বিতরণ পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, আগামী নির্বাচন চ্যালেঞ্জিং হবে। কারণ এ নির্বাচনকে সামনে রেখে অনেক দেশী বিদেশী ষড়যন্ত্র হবে। তবে ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগের কাছে কোনো ষড়যন্ত্রই টিকবে না।

তিনি বলেন, সামনে নির্বাচন। বিএনপি ৭ দফা দাবি করেছে। তাদের এ ধরনের দাবি মামা বাড়ীর আবদার। তাদের ৭ দফা দাবি নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্রের দাবি। তারা নিজেরাও জানে এ ধরনের দাবি কেউ মানবে না।

বিএনপির আন্দোলনের বিষয়ে কাদের বলেন, গত দশ বছরে দশ মিনিটও বিএনপির আন্দোলন দেখেন নি। আর আগামী এক মাসেও কোন আন্দোলন হবে না। কারণ মরাগাঙ্গে আর কখনো জোয়ার আসবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অসুস্থ রাজনীতির কারণে কর্মীদের মধ্যে শত্রুতা সৃষ্টি বন্ধ করতে হবে।

তিনি বলেন, ‘শ্লোগান- পাল্টা শ্লোগান দিয়ে নমিনেশন পাওয়া যাবে না, রং বেরঙ্গের পোস্টার নমিনেশন দেবে না। যারা জনগণের সঙ্গে ভালো আচরণ করে না, চাঁদাবাজী করে, অপকর্ম করে তাদের মনোনয়ন দেওয়া হবে না। ভালো হয়ে যান, কেউ অপকর্ম করবেন না, কেউ চাঁদাবাজী করবেন না। আওয়ামী লীগে দখলদার চাঁদাবাজদের জায়গা নেই।’

তিনি বলেন, ‘আপনাদের কাছে আমার দাবি একটাই, প্রার্থী যে কয়েকজনই হোক, নমিনেশন পাবে একজন। বাকিরা যদি ভেতরে ভেতরে বিরোধিতা করে তাহলে আমাদের জন্য ভালো হবে না। প্রার্থী হওয়ার অধিকার সবারই আছে। অসুস্থ প্রতিযোগিতা কর্মীদের মধ্যে শত্রুতার সৃষ্টি করে। এই শত্রুতা সৃষ্টি করবেন না।’

পরে তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের উন্নয়ন ও অর্জন সম্পর্কে জানাতে এবং আগামী জাতীয় নির্বাচনকে বিএনপি জামায়াতের সম্ভাব্য নাশকতা সম্পর্কে সতর্ক করতে তৈরি লিফলেট বিতরণ করেন।



মন্তব্য

zahedu commented 19 hours ago
ডিজ্যাবল(ডিজিটাল) নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে আওয়ামীলীগকে রক্ষার জন্যে। লক্ষ্য করে দেখবেন আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মী পুলিশ,র্যাব,বিজিবি, এবং নিজেস্ব অস্রধারী বাহিনী ছাড়া রাস্তায় নামতে পারেনা। তাই আওয়ামীলীগ দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ ডিজ্যাবল, আওয়ামীলীগ বাঁচতে হলে এই ৪ বাহিনী ও ডিজ্যাবল আইন ছাড়া বাঁচতে পারবেনা।