kalerkantho


সাভারে শাহীনের জনসংযোগে জনস্রোত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৪:৪১



সাভারে শাহীনের জনসংযোগে জনস্রোত

সাভারের অমিনবাজারে বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় আসন্ন জাতীয় নির্বাচন ঘিরে জনসংযোগ করেছে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের তরুণ রাজনীতিবিদ শাহীন আহমেদ। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে সাধারণ মানুষের কাছে ছুটে গিয়েছেন এই রাজনীতিবিদ শাহীন আহমেদ। অন্যদিকে জনমানুষও তাকে নিরাশ করেনি। শত শত মানুষের ঢল নামে এই জনসংযোগে। এ সময় জনসংযোগে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে লিফলেট বিতরণ করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দিনব্যাপী সাভারে আমিনবাজারের এলাকার বিভিন্ন মার্কেট, পাড়া ও মহল্লায় এই জনসংযোগ করা হয়। শিশু, বৃদ্ধসহ সব বয়সের মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন ও আগামীতে আবারও আওয়ামী লীগ সরকারে ক্ষমতায় আনতে নানা উন্নয়নের দিক তুলে ধরেন। এসময় জনসংযোগে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের অন্তত কয়েক শতাধিক দলীয় নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন। পাশাপাশি স্থানীয় জনগনও বিপুল উৎসাহের মাধ্যমে শাহীন আহমেদ স্বাগত জানায়। এসময় তারা বিভিন্ন স্লোগানে আওয়ামী লীগ ও শাহীন আহমদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড কথা বলেন।  

এদিকে শাহীন আহমেদকে আসন্ন নির্বাচনে সাংসদ প্রার্থী হিসেবে পাওয়ার প্রত্যাশা জানিয়ে আমিনবাজার ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বাররা লিখিত স্বাক্ষর দেন।

আমিন বাজারের যুবলীগ নেতা রাকিব হোসেন জানান, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে ঢাকা-২ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী শাহীন আহমেদের ব্যাপক জনপ্রিয়তা লক্ষ্য করা গেছে। এর আগে এই আসনে তৃনমুল পর্যায়ে জনগনের এতো কাছে খুব একটা দেখা যায়নি কাউকে। এছাড়া শাহীন আহমেদ আমিনবাজারের পাশ্ববর্তী কেরানীগঞ্জ উপজেলার সফল চেয়ারম্যান। তার এলাকার কার্যক্রম ও উন্নয়নের বাতাস প্রতিবেশী আমিনবাজারের মানুষ জানে। ফলে সাধারণ জনগনের প্রত্যাশা এই আসনের সাংসদ হয়ে শাহীদ আহমেদ এই এলাকাও উন্নয়নের ধারা বজায় রাখবেন। 

আমিনবাজেরর দোকানী খোরশেদ মিয়া জানান, এতো বড় নেতা, আমাদের কাছে এসেছেন। শুধু নেতাকর্মী নন, তিনি সাধারণ জনগনের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করেন। মাঝে মধ্যেই আসেন ও খোঁজ নেন। এমন হাসি খুশি মানুষকেই আমরা নেতা হিসেবে দেখতে চাই। 

রিক্স চালক জমির উদ্দিন জানান, এই নেতার কথা অনেক শুনেছি। আজকে দেখলাম। খুবই মিশুক মানুষ। মানুষ দেখলেই বুঝা যায়। এই নেতারা দেইখাই মনে হয়, তিনি ভোটে জিতলেও জনগনের কথা ভুলবো না।

এদিকে সাভার উপজেলার যুবলীগের সদস্য ও সাবেক ছাত্র নেতা শাহ নেওয়াজ জানান, শাহীন আহমেদের জনসংযোগে বিপুল মানুষের সাড়া পাওয়া গেছে। তারা উৎসাহ উদ্দিপনার মাধ্যমে তারা গ্রহন করেছে শাহীন আহমেদকে। এখানকার প্রায় ৯৫ শতাংশ জনগনই শাহীন আহমেদকে ঢাকা-২ আসনের সাংসদ হিসেবে দেখতে চায়। কারন শাহীন আহমেদ সহজেই মানুষের সঙ্গে মিশতে পারে। 

ঢাকা-২ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী তরুন রাজনীতিবিদ শাহীন আহমেদ জানান, দেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, আর এই ধারা অব্যহত রাখতে আগামীতে আওয়ামী লীগ সরকারের বিকল্প নেই। এদিকে কেরানীগঞ্জের উপজেলার চেয়ারম্যান হয়ে জনগণের প্রত্যাশা পূরণে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি। অন্যদিকে আমার পাশ্ববর্তী এলাকা ও ঢাকা-২ আসনের অংশ সাভারের আমিনবাজার, ভাকুর্তা ও  তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন অর্ন্তভুক্ত। ফলে আমার চেষ্টা থাকলে উন্নয়নের ধারা নিয়ে এই এলাকায় কাজ করা সম্ভব নয়। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি সুযোগ দেন, তাহলে এখনো উন্নয়নের ধারা ও জনগণের প্রত্যাশা পূরণে নিরলস ভাবে কাজ করতে চাই।



মন্তব্য