kalerkantho


পিআইবি’র কর্মশালার সমাপনীতে বক্তারা

আগামীতে নির্বাচনের পর কার্যকর ও প্রাণবন্ত সংসদ পাওয়ার প্রত্যাশা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ আগস্ট, ২০১৮ ০২:২৪



আগামীতে নির্বাচনের পর কার্যকর ও প্রাণবন্ত সংসদ পাওয়ার প্রত্যাশা

ছবি: কালের কণ্ঠ

আগামী জাতীয় নির্বাচনের পরে একটি প্রাণবন্ত ও কার্যকর সংসদ গঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বক্তারা। তারা বলেছেন, সাংবাদিকদের দক্ষতা বাড়াতে ও বিষয়ভিত্তিকভাবে অভিজ্ঞ করে গড়ে তুলতে প্রশিক্ষণের কোনো বিকল্প নেই। তাই সংসদ রিপোর্টারদের প্রশিক্ষণের পাশাপাশি নিয়মিত পড়ালেখার চর্চা চালিয়ে যেতে হবে।

গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ প্রেস ইনিস্টিটিউটে আয়োজিত সংসদ বিষয়ক রিপোর্টিংয়ের ওপর তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা শেষে তারা এ কথা বলেন। বাংলাদেশ প্রেস ইনিস্টিটিউট আয়োজিত এই কর্মশালা গত ১২ আগস্ট শুরু হয়। পিআইবির মহাপরিচালক শাহ আলমগীরের সভাপতিত্বে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। 

অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, গাজী মিডিয়ার চিফ এডিটর সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, পার্লামেন্ট জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি উত্তম চক্রবর্তী ও যুগ্ম সম্পাদক নিখিল ভদ্র, পিআইবি’র পরিচালক (প্রশিক্ষণ) আনোয়ারা বেগম ও প্রশিক্ষক শাহ আলম সৈকত এবং প্রশিক্ষণার্থী কাজী সোহাগ ও তাপসী রাবেয়া আখি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইকবাল সোবহান চৌধুরী সংসদ রিপোর্টিং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখানে শেখার কোনো অন্ত নেই। এ জন্য পার্লামেন্টের রুলস অর বিসনেজ সম্পর্কে বিশেষ ধারণা থাকতে হবে। তিনি বলেন, যদিও বর্তমান পার্লামেন্ট আগের মতো অতটা প্রাণবন্ত নয়। সে কারণে এখানে হয়তো সংবাদ ততটা পাঠককে আকৃষ্ট করে না। তবে আগামী একাদশতম জাতীয় নির্বাচনের পরে একটি প্রাণবন্ত ও কার্যকর পার্লামেন্ট জাতি পাবে বলে সকলে আশা করে। জাতীয় ইস্যুগুলো সহিংসতার মাধ্যমে রাজপথে সমাধান না করে পার্লামেন্টে যুক্তি তর্কের মাধ্যমে সমাধান হওয়াটা ভালো বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সাংবদিকতায় দক্ষতা বাড়াতে প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্বারোপ করে সভাপতির বক্তব্যে শাহ আলমগীর বলেন, যত বেশি শেখা যাবে নিজের যোগ্যতা ও লেখার মান ততই বাড়বে। তিনি সংসদ বিষয়ক সাংবাদিকদের জন্য আগামীতে সংবিধান ও রুলস অব প্রসিডিওরের ওপর বিশেষ প্রশিক্ষণ আয়োজনের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, তিনদিনের এই প্রশিক্ষণে ৩৫ জন রিপোর্টার অংশগ্রহণ করেন।



মন্তব্য