kalerkantho


বৈধ অস্ত্র যেভাবে সন্ত্রাসীদের হাতে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জুন, ২০১৮ ০৪:৫৯



বৈধ অস্ত্র যেভাবে সন্ত্রাসীদের হাতে

বৈধ অস্ত্রের দোকান থেকে কেনা হচ্ছে নানা রকম অস্ত্র। আর তা হাতবদল হয়ে চলে যাচ্ছে সন্ত্রাসী ও জলদস্যুদের কাছে। সম্প্রতি একজন অস্ত্র বিক্রেতা ও চিকিত্সককে গ্রেপ্তারের পর ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল (সিটিটিসি) ক্রাইম ইউনিট জানতে পেরেছে এসব তথ্য।

গত শুক্রবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘মোহাম্মদ আলী বাবুল (৫৭) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি বৈধ ডিলারের কাছ থেকে অস্ত্র কিনে অবৈধভাবে বনদুস্যদের কাছে বিক্রি করে আসছিলেন। গত ১৫ মে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে ডা. জাহিদুল আলম কাদিরকে ও তাঁর স্ত্রী মাসুমা আক্তারকে গাবতলী এলাকা থেকে অস্ত্র-গুলিসহ গ্রেপ্তার করা হয়। জাহিদুল আলম কাদিরের ময়মনসিংহের বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় বেশকিছু অস্ত্র-গুলি।’ 

জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে মনিরুল ইসলাম বলেন, অস্ত্র ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী বাবুল আগ্নেয়াস্ত্রের বৈধ ডিলারশিপ থাকলেও অধিক মুনাফার লোভে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধপন্থায় অস্ত্র কেনাবেচা করে আসছিলেন। ময়মনসিংহ ছাড়াও তিনি রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও বিশেষ করে খুলনার সুন্দরবনের বনদস্যুদের কাছে অস্ত্রগুলো বিক্রি করতেন। মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে তিনি নিজেই পৌঁছে দিতেন সব অস্ত্র-গুলি। গ্রেপ্তারের দিনও তিনি যাচ্ছিলেন অস্ত্র বিক্রি করতে।

সূত্র জানায়, ১১ জুন মেসার্স নেত্রকোনা আর্মস কোংয়ের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ আলী বাবুলকে মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে গ্রেপ্তার করে সিটিটিসির স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপ। তাঁর কাছে পাওয়া যায় বৈধ কাগজপত্রহীন ১০টি আগ্নেয়াস্ত্র ও এক হাজার ১৮৫ রাউন্ড গুলি। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, অবৈধ অস্ত্রগুলি মজুদ ও বিক্রির তথ্য। এসব অস্ত্রের বেশির ভাগ ব্যবহার করেছে সুন্দরবনের জলদস্যুরা।



মন্তব্য