kalerkantho


'আইসিসির চিঠির জবাব এখনই দিচ্ছে না ঢাকা'

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২৪ মে, ২০১৮ ০২:৪৪



'আইসিসির চিঠির জবাব এখনই দিচ্ছে না ঢাকা'

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা পরিচালনার আইনগত অধিকার বিষয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) চিঠির জবাব আপাতত দিচ্ছে না বাংলাদেশ।

গতকাল বুধবার ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এ তথ্য জানান। 

রোহিঙ্গা নিপীড়নের দায়ে মিয়ানমারের ওপর ক্রমবর্ধমান আন্তর্জাতিক চাপের উদাহরণ দিতে গিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই আইসিসির চিঠির প্রসঙ্গ তোলেন। সঙ্গে সঙ্গে সাংবাদিকরা জানতে চান, মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা পরিচালনার আইনগত অধিকার আইসিসির আছে কিনা সে বিষয়ে বাংলাদেশের মতামত জানতে চেয়ে ওই আদালত সম্প্রতি যে চিঠি পাঠিয়েছে তার জবাব কী? উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের জবাব আপাতত নেই। কারণ, আমরা দেখছি কী করা যায়।

এর আগে তিনি বলেন, চীন এবং রাশিয়াও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন এবং কফি আনান কমিশনের সুপারিশগুলোর বাস্তবায়ন চায়। মিয়ানমারের ওপর চাপ ক্রমেই বাড়ছে। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের দেওয়া আট হাজার রোহিঙ্গা থেকে প্রায় ২২শ’ জনকে মিয়ানমার নিজেদের বলে স্বীকার করেছে বলে তিনি গণমাধ্যমের তথ্যে দেখেছেন। তিনি বলেন, ওদের (মিয়ানমার) সঙ্গে আলোচনা করা খুবই দুরহ ব্যাপার।’

গত নভেম্বরের প্রত্যাবাসন চুক্তিতে দুই বছরের মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শেষ হওয়ার কথা রয়েছে—বিষয়টি এক সাংবাদিক তুললে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এগুলো বলে তো কোনো লাভ নেই। যে গতিতে এগুচ্ছে তাতে প্রত্যাবাসনে ১০০ বছর লাগবে। তাইতো বলতে চাচ্ছেন?’

প্রশ্নকারী সাংবাদিক বলেন, তিনি কেবল জানতে চাচ্ছেন, দুই বছরের সময়সীমার মধ্যে যে প্রত্যাবাসন হচ্ছে না এ বিষয়টি কী মন্ত্রী মানছেন?

জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমি কোনো সময়সীমা দিতে পারবো না। কারণ বিষয়টি আমার হাতে নেই।’ তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমরা আশাবাদী। আশা নিয়েই তো মানুষ বেঁচে থাকে। আমরা তো ফেরত পাঠিয়েছে অতীতে। গোটা বিশ্বের শক্তিধর রাষ্ট্রগুলো আমাদের সঙ্গে আছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, একদম ইয়েভাবে (নেতিবাচকভাবে) লিখবেন না। প্রতিবেশী দেশ। ওদের সঙ্গে থাকতে হবে আমাদের। ওই সাহেবদের (মিয়ানমারের জেনারেলরা) ইউরোপের বিভিন্ন রাজধানীতে বেড়াতে যাবার খুব শখ। এখন তো বন্ধ করে দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। চাপ তো বাড়ছে।



মন্তব্য