kalerkantho


ডিবি পরিদর্শক নিহত

দু’দিনেও অধরা হাসান ও তার সহযোগীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ মার্চ, ২০১৮ ০২:৫০



দু’দিনেও অধরা হাসান ও তার সহযোগীরা

রাজধানীর মিরপুরে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি-পশ্চিম বিভাগ) পরিদর্শক জালাল উদ্দিন নিহত হওয়ার ঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসী হাসান ও তার সহযোগীদের ধরতে পারেনি পুলিশ। সোমবার রাতে ঘটনার পর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের স্বজনদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদে খুনিদের নাম জানতে পেরেছে গোয়েন্দা পুলিশ। খুনিরা যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে সেজন্য তাদের নাম-পরিচয় ইমিগ্রেশন পুলিশকেও দেওয়া হয়েছে।

ডিবি-পশ্চিম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম মোস্তফা রাসেল বুধবার সন্ধ্যায় জানান, ঘটনার পর সন্ত্রাসীদের স্বজনদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তাদের এখনো জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। গুরুত্বপূর্ণ তথ্যও পাওয়া যাচ্ছে। মামলা হলে তাতে এদেরকে গ্রেপ্তার দেখানো হতে পারে।

তিনি বলেন, আটককৃতরা জিজ্ঞাসাবাদে হাসান নামে এক সন্ত্রাসীর নাম বলেছে। হাসানসহ পাঁচ-ছয়জন ওই ঘটনায় জড়িত। তাদের ধরতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাধিক টিম অভিযান চালাচ্ছে। জড়িতরা যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে সে ব্যাপারে ইমিগ্রেশন পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে। 

ইমিগ্রেশন পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ডিবি পশ্চিম বিভাগের পক্ষ থেকে বিষয়টি আমাদের জানানো হয়েছে। জড়িতরা যাতে কোনোভাবে দেশত্যাগ করতে না পারে সে ব্যাপারে আমরা সতর্ক রয়েছি। 

১০৫/১/এ নম্বর বাসায় ঘটনার পর ওই বাসা থেকে হাসানের স্ত্রীকে আটক করা হয়। ভবনটির উপরতলার একটি কক্ষ থেকে হাসানের আত্মীয় মানিকের স্ত্রীকেও আটক করে ডিবি। হাসানের স্ত্রীর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পাশের উত্তর পীরেরবাগ থেকে হাসানের মা, বোন আমেনা ও বোনের স্বামীকে আটক করা হয়। 

মিরপুর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মাসুদ আহমেদ বলেন, ওই ঘটনায় এখনো (গতকাল সন্ধ্যা) মামলা হয়নি। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে ডিবি’র পাশাপাশি থানা পুলিশও মাঠে নেমেছে। মামলা দায়েরের পর তা তদন্তের দায়িত্ব থানা পুলিশে ন্যস্ত হলে তারা তদন্ত করবে। 

দুই পুলিশ সার্জেন্টের খোয়া যাওয়া দু’টি পিস্তল উদ্ধার করতে সোমবার রাতে পীরেরবাগের ওই বাসায় অভিযান চালায় গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম। ভবনটিতে প্রবেশের গেট বন্ধ থাকায় রেকি করতে দুই ভবনের কার্নিশ বেয়ে উপরে উঠেছিলেন পরিদর্শক জালাল। টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা ইট দিয়ে জালালের মাথায় আঘাত করে। এরপর মাথা লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলি করে। গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পর তিনি মারা যান।



মন্তব্য