kalerkantho


'পানি সমস্যা নিরসনে দরকার প্রকৃতিনির্ভর পানি ব্যবস্থাপনা'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ মার্চ, ২০১৮ ২১:০৩



'পানি সমস্যা নিরসনে দরকার প্রকৃতিনির্ভর পানি ব্যবস্থাপনা'

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ নিরাপদ পানি সমস্যা নিরসনে প্রকৃতিনির্ভর পানি ব্যবস্থাপনার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। 

তিনি বলেন, ‘পানি প্রকৃতির একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। পানিই পৃথিবীকে বাঁচিয়ে রেখেছে, বাসযোগ্য রেখেছে। বলতে গেলে পানি ছাড়া প্রকৃতি, জীবন ও সভ্যতা অচল। কিন্তু নিরাপদ পানির প্রাপ্যতা ও সুষ্ঠু ব্যবহারের অভাবে প্রকৃতি তার স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য হারাচ্ছে এবং জীববৈচিত্র্যও হুমকির মুখে পড়ছে। প্রকৃতি ও পানির অবিবেচক ব্যবহারের ফলে পানির গুণাগুণ ও পরিমাণ হ্রাস পাচ্ছে। নিরাপদ পানির অভাবে মানুষের স্বাস্থ্য ও সামগ্রিক জীবনযাত্রার ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। এ সমস্যা নিরসনে দরকার প্রকৃতিনির্ভর পানি ব্যবস্থাপনা।’

বিশ্ব পানি দিবস উপলক্ষে আজ বুধবার দেওয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আগামীকাল বৃহস্পতিবার ‘বিশ্ব পানি দিবস ২০১৮' পালিত হতে যাচ্ছে জেনে সন্তোষ প্রকাশ করে আবদুল হামিদ বলেন, বিশ্ব পানি দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য ‘পানির জন্য প্রকৃতি’ বর্তমান বিশ্ব প্রেক্ষাপটে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে আমি মনে করি।

রাষ্ট্রপতি বলেন, আবহমানকাল থেকে মানুষের জীবন জীবিকা, শিক্ষা সংস্কৃতি, সভ্যতা ইতিহাস ও অর্থনীতি পানিকে ভিত্তি করেই গড়ে উঠেছে। পানির চাহিদা পূরণে পানির আহরণ, উন্নয়ন ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা একান্ত প্রয়োজন।

তিনি বলেন, দেশের পানি সম্পদের সার্বিক উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়কে টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও ব্যবহার করতে হবে। দেশের জনগণকেও এ ব্যাপারে সচেতন করে তুলতে হবে এবং এ সম্পর্কিত সকল কর্মকাণ্ডে জনগণের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

আবদুল হামিদ বলেন, জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাসমূহের মধ্যে সমন্বিত পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা ও জলাভূমি ব্যবস্থাপনা অন্যতম। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে দেশের সকল নদনদী, জলাভূমি ও প্রাকৃতিক সম্পদের উন্নয়ন ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার বিষয়টি অতীব গুরুত্বপূর্ণ।

রাষ্ট্রপতি বাণীতে উল্লেখ করেন, দিবসটি পালনের মধ্যে দিয়ে টেকসই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে একদিকে যেমন সহায়ক ভূমিকা পালন করবে অন্যদিকে প্রকৃতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান পানির গুরুত্ব সম্পর্কে সকলে সম্যক ধারণা লাভ করতে সক্ষম হবেন বলে তিনি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন।

একইসঙ্গে তিনি ‘বিশ্ব পানি দিবসেরও সফলতা কামনা করেন।


মন্তব্য