kalerkantho


পাইলট আবিদের স্ত্রীর অবস্থা অপরিবর্তিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ মার্চ, ২০১৮ ০৪:১৩



পাইলট আবিদের স্ত্রীর অবস্থা অপরিবর্তিত

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ইউএস-বাংলার পাইলট আবিদ সুলতানের স্ত্রী আফসানা খানম টনির শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। স্বামী মারা যাওয়ার পর তিনি অসুস্থ হয়ে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স অ্যান্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। মস্তিষ্কে দুই দফা রক্তক্ষরণের পর চিকিৎসকরা তাঁর মাথার খুলি খুলে রেখেছেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাঁর জীবন রক্ষায় সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে। মেডিক্যাল বোর্ড সবকিছু সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করছে।

আফসানা খানম টনির শারীরিক অবস্থা নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার হওয়ায় গতকাল মঙ্গলবার গণমাধ্যমে কথা বলেন হাসপাতালের যুগ্ম পরিচালক ও মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান ডা. বদরুল আলম। তিনি বলেন, 'ক্যাপ্টেন আবিদের স্ত্রী বেঁচে আছেন। তাঁর কিডনি, হার্ট ও লিভার সব সচল রয়েছে। তবে ব্রেন স্বাভাবিক রেসপন্স করছে না। মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল বিঘ্ন ঘটায় আমরা অস্ত্রোপচার করি। কিন্তু পরশু রাতে তিনি আবারও স্ট্রোক করেন। এরপর রাতে আমরা আরেকটা অপারেশন করি। মস্তিষ্কের ওপর অতিরিক্ত চাপ কমাতে আমরা তাঁর মাথার খুলি খুলে রেখেছি। তাঁর ব্লাড প্রেসার এখন ১২০/৮০। ইউরিন ফাংশনও ঠিক আছে। মেশিনের মাধ্যমে শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছেন।'

সংবাদমাধ্যমে আফসানার মৃত্যু সংবাদ প্রচার প্রসঙ্গে অধ্যাপক বদরুল আলম বলেন, 'তাঁর অবস্থা সংকটাপন্ন ও আশঙ্কাজনক, এটা আমরা বলতে পারি। কিন্তু তিনি এখনো জীবিত আছেন। নেচারালি ডেড না হলে তো আমরা ডেড বলতে পারি না। আর এখন দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে না। কারণ যে পরিমাণ ভেন্টিলেশন তাঁর দরকার, সেটা দেওয়া সম্ভব হবে না। তাঁর চিকিৎসায় সাত সদস্যের আরেকটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হবে।'

স্বজনরা জানায়, স্বামীকে হারিয়ে অস্বাভাবিক আচরণ করছিলেন আফসানা। এ অবস্থায় রবিবার মসি্তষ্কে রক্তক্ষরণের কারণে হাসপাতালে ভর্তি হন।

নেপালের কাঠমাণ্ডু ত্রিভুবন বিমানবন্দরে গত ১২ মার্চ বিধ্বস্ত বিমানটির পাইলট ছিলেন আবিদ সুলতান। এ দুর্ঘটনায় তিনিও নিহত হন। গত সোমবার আবিদসহ ২৩ জনের মরদেহ দেশে ফিরিয়ে এনে আর্মি স্টেডিয়ামে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মাকে হাসপাতালে রেখে বাবার লাশ আনতে গিয়েছিলেন এ দম্পতির একমাত্র ছেলে তানজিদ সুলতান।


মন্তব্য