kalerkantho


অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ

তিন এমপির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নেমেছে দুদক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ মার্চ, ২০১৮ ১৮:৩৬



তিন এমপির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নেমেছে দুদক

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সাবেক ও বর্তমান তিন এমপির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা মিজানুর রহমান, লালমনিরহাটের সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা আসাদুল হাবিব দুলু এবং নাটোরের সাবেক সংসদ সদস্য রুহুল কুদ্দুস দুলুর বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুদক। আজ  বৃহস্পতিবার সকালে সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে কমিশনের এক বৈঠকে তাদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

সম্প্রতি আওয়ামী লীগ ও বিএনপির তিন নেতার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আসে কমিশনে। অভিযোগগুলো কমিশন যাচাই-বাছাই শেষে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় বলে দুদকের উপ-পরিচালক ও জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেন। 

দুদকের পরিচালক কাজী শফিকুল আলমের সই করা চিঠিতে কমিশনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক অভিযোগটি অনুসন্ধানের পরবর্তী কার্যক্রম গ্রণের জন্য পাঠানো হয়। আগামী সপ্তাহের মধ্যে অনুসন্ধান কর্মকর্তা হিসেবে দুদক কর্মকর্তাকে অনুসন্ধানের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হবে।

দুদক সূত্রে জানা গেছে, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে খুলনা সিটি করপোরেশন ও অন্যান্য সরকারি অফিসের ঠিকাদারি নিজ পরিবারের সদস্যদের নামে কাজ মঞ্জুর করে নামমাত্র কাজ করে বাকি টাকা আত্মসাৎ ও মাদকের ব্যবসা করে শত কোটি টাকা মূল্যের অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। অল্প কয়েক বছরে ঢাকা ও খুলনাসহ বিভিন্ন জেলায় কোটি কোটি টাকার সম্পদ গড়েছেন তিনি। ওইসব সম্পত্তির বৈধ কোনো উপার্জনের পথ নেই। অন্যদিকে লালমনিরহাটের সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা আসাদুল হাবিব দুলুর বিরুদ্ধে বিএনপি আমলে লালমনিরহাট ও রংপুর অঞ্চলের টেন্ডারবাজি এবং ব্যবসায়ীদের নিকট হতে চাঁদা আদায়পূর্বক কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে।

এ ছাড়াও নাটোরের সাবেক সাংসদ রুহুল কুদ্দুস দুলুর বিরুদ্ধে বিএনপি সরকারের আমলে নাটোরের বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পে টেন্ডারবাজি, মাদক ব্যবসা ও ব্যবসায়ীদের নিকট হতে চাঁদা আদায়পূর্বক ৫০০ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। 



মন্তব্য