kalerkantho


মিয়ানমার প্রতিনিধি দল ঢাকায়, কাল থেকে আলোচনা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৬:০৯



মিয়ানমার প্রতিনিধি দল ঢাকায়, কাল থেকে আলোচনা

গণহত্যা ও নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেতা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন ইস্যুতে আলোচনার জন্য ঢাকার আমন্ত্রণে মিয়ানমারের ১২ সদস্যের প্রতিনিধিদল ঢাকায় এসেছেন বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। দুই দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দুই দিনের বৈঠক আগামীকাল বৃহস্পতিবার ঢাকায় শুরু হচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বাংলাদেশের পক্ষে এবং মিয়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী খ শোয়ে দেশটির পক্ষে নেতৃত্ব দেবেন। আজ বুধবার দুপু‌রে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে তি‌নি বিষয়টি জানান।


আরো পড়ুন:


মন্ত্রী বলেন, এই বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন, ইয়াবার চোরাচালান বন্ধ ও সীমান্তে দুই দেশের নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে সহযোগিতার বিষয়টি প্রাধান্য পাবে। মিয়ানমা‌রের স‌ঙ্গে রো‌হিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর ব্যাপা‌রে কথা হয়ে‌ছে। মিয়ানমা‌রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পক্ষ ‌থে‌কে আমা‌দের দাওয়াত দেওয়া হ‌য়ে‌ছিল। আমরা মিয়ানমা‌রে গি‌য়ে‌ছিলাম। টেন প‌য়েন্ট ডিক্লিয়া‌রেশন হ‌য়ে‌ছে। পরে আমরা দেশে এ‌সে মিয়ানমা‌রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দাওয়াত পাঠাই। তা‌দের ১২ সদ‌স্যের এক‌টি দল ঢাকায় এ‌সে‌ছে। দলটির স‌ঙ্গে সব বিষ‌য়ে আ‌লোচনা হ‌বে। যে প্রস্তাবগু‌লো আ‌গে রাখা হ‌য়ে‌ছিল, সেগু‌লো আরও ডেভেলপ করা হ‌বে।


আরো পড়ুন:


রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ছাড়াও মিয়ানমার থেকে চোরাচালান হয়ে আসা ইয়াবা বড়ি নিয়ে ভীষণভাবে উদ্বিগ্ন বাংলাদেশ। ইয়াবার কারখানা বন্ধে মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তবে গত রবিবার সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তারা মিয়ানমারের কাছ থেকে প্রত্যাশিত সহযোগিতা পাচ্ছেন না। এখন বাংলা‌দে‌শে রো‌হিঙ্গা‌দের অনুপ্র‌বেশ অ‌নেকাং‌শে ক‌মে‌ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী ব‌লেন, ধী‌রে ধী‌রে এটা শূন্যের ঘ‌রে আসবে। মিয়ানমা‌রের উপর এখন আন্তর্জা‌তিক চাপ র‌য়ে‌ছে। তাই তারা আ‌লোচনা কর‌তে আমা‌দের স‌ঙ্গে ব‌সে‌ছে। রো‌হিঙ্গা‌দের ফি‌রি‌য়ে না নি‌লে আন্তর্জা‌তিক চাপ আরও বাড়‌বে। আশা কর‌ছি মিয়ানমা‌র দ্রুতই রো‌হিঙ্গা‌দের ফি‌রি‌য়ে নে‌বে।

গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর সশস্ত্র গোষ্ঠীর হামলার পর সেনা অভিযানের মুখে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। আগে থেকে আছে আরও প্রায় পাঁচ লাখ। এদেরকে ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে ফিজিক্যাল অ্যারাঞ্জমেন্ট চু্ক্তি হয়েছে জানুয়ারিতে।

 



মন্তব্য