kalerkantho


সংসদে প্রশ্নোত্তরে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

রাজাকার, আলবদর ও মানবতাবিরোধীদের তালিকা প্রকাশের উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০২



রাজাকার, আলবদর ও মানবতাবিরোধীদের তালিকা প্রকাশের উদ্যোগ

ফাইল ছবি

রাজাকার, আলবদর ও মানবতাবিরোধীদের তালিকা প্রকাশের বিষয়ে ইতিমধ্যে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে লিখিত  প্রশ্নোত্তরে তিনি এ তথ্য জানান।

সরকারি দলের সদস্য বেগম নাসিমা ফেরদৌসীর লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো জানান, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধীতাকারী মানবতা বিরোধী রাজাকার, আলবদর, আলসামসদের পূর্ণাঙ্গ কোন তালিকা প্রণয়ন করা হয়নি। তিনি জানান, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে বাঙালি জাতি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে দীর্ঘ নয় মাস সশস্ত্র যুদ্ধে সীমাহীন ত্যাগ অসীম বীরত্ব প্রদর্শন করে বিজয় ছিনিয়ে আনে। ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা।

একই প্রশ্নের জবাবে মোজাম্মেল হক জানান, জাতির পিতার যোগ্য উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ ও চেতনা সমুন্নত রেখে বঙ্গবন্ধুর আজন্ম লালিত স্বপ্ন একটি সুখী ও সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়তে মুক্তিযোদ্ধাদেরকে নিয়ে এ সরকার কাজ করে যাচ্ছে। ফলে মুক্তিযোদ্ধাদের পাশাপাশি রাজাকার, আলবদর ও আলসামসের একটি সঠিক তালিকা প্রণয়ন এখন সময়ের দাবিতে পরিণত হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।

আওয়ামী লীগের উম্মে রাজিয়া কাজলের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার, আলবদর ও আলসামসদের বিরুদ্ধে ঘৃণা প্রকাশের জন্য ঢাকায় কেন্দ্রীয়ভাবে একটি ঘৃণা স্তম্ভ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। এ বিষয়ে খসড়া নকশা প্রণয়ন করা হয়েছে।

একই দলের সেলিনা বেগমের প্রশ্নের জবাবে আ ক ম মোজাম্মেল হক জানান, সিরাজগঞ্জ জেলায় বর্তমানে তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা ৩ হাজার ৪১ জন।



মন্তব্য